কলকাতা: লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপির ভাল ফলের পর থেকেই বিজেপির যোগের প্রবণতা হু হু করে বেড়েছিল। পাশাপাশি টলিপাড়ায় যে বিজেপি ক্রমশ প্রভাব বিস্তার করছে, সেই খবরও আসতে শুরু করেছিল। সেই গেরুয়া হাওয়াতেই খবর আসে অভিনেত্রী মাধবী মুখোপাধ্যায় যোগ দিচ্ছেন গেরুয়া শিবিরে। কিন্তু সেই দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন অভিনেত্রী নিজেই।

এক সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দিয়ে তিনি জানিয়েছে যে তাঁর সঙ্গে বিজেপির কোনও সম্পর্ক নেই। তাঁর নামে মিথ্যা প্রচার চালানো হচ্ছ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। পাল্টা অভিযোগ করে মাধবী জানিয়েছেন একটি কাগজে সই করানো হয়েছে প্রতারণা করে।

তাঁর অভিযোগ, বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদের নাম নিয়ে মিলন ভৌমিক সহ বেশ কয়েকজন তাঁর কাছে আসেন। দুঃস্থ শিল্পী ও টেকনিশিয়ানদের সাহায্যের আর্জি জানান তাঁর কাছে। তিনিও তাঁদের পাশে থাকার আশ্বাস দেন। এরপরই তাঁকে একটি কাগজে সই করানো হয়। চশমা না পরে সই করেও দেন অভিনেত্রী।

এরপর অভিনেত্রীর কাছে পরপর ফোন আসতে থাকে। জিজ্ঞাসা করা হয় তিনি বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন কিনা। এরপরই পুরো বিষয়টা তাঁর কাছে পরিষ্কার হয়ে যায়।

প্রসঙ্গত, ২০০১ সালে তৃণমূলের টিকিটে মাধবী মুখোপাধ্যায় তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যর বিরুদ্ধে যাদবপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে ভোটে দাঁড়ান এবং হেরে যান। হেরে যাওয়ার পর সক্রিয় ভাবে আর তাঁকে তেমন ভাবে রাজনীতিতে দেখা যায়নি তাঁকে। এতদিন পরে হঠাৎ বিজেপি প্রভাবিত একটি সংগঠনের সঙ্গে মাধবীর নাম জড়িয়ে যাওয়ায় অবাক হয়ে যান অনেকেই।

কিছুদিন আগেই বামপন্থী বলে পরিচিত অভিনেতা বিপ্লব চট্টোপাধ্যায়ও বঙ্গীয় চলচ্চিত্র পরিষদের বিশেষ পরামর্শদাতা কমিটিতে যোগ দিয়েছেন । তিনিও এক সময়ে রাসবিহারী কেন্দ্র থেকে বামেদের সমর্থনে ভোটে লড়েন এবং পরাজিত হন।