স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া:  নিকাশী সাফাই করতে এসে সাফাই কর্মীরা আবিষ্কার করলেন, নর্দমায় পড়ে রয়েছে সদ্যজাতর দেহ৷ ঘটনার জেরে বৃহস্পতিবার সকালে চাঞ্চল্য ছড়াল হাওড়ার সদর বক্সী লেনে৷ সদ্যজাত পড়ে থাকার বিষয়টি চাউড় হতেই সংশ্লিষ্ট এলাকায় ভিড় জমান বহু মানুষ৷ সকলেই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেন৷

আরও পড়ুন: সাতসকালে বেলাইন হাওড়া-জবলপুর শক্তিপুঞ্জ এক্সপ্রেস

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রাতের অন্ধকারে কেউ বা কারা ওই শিশুর দেহটি রাস্তার ড্রেনের মধ্যে ফেলে রেখে যায়। এদিন সকালে পুরসভার সাফাই কর্মীরা নর্দমা সাফাই করতে এলে, তাঁদের নজরে পড়ে সদ্যজাতর দেহটি৷ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পুলিশ দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।

আরও পড়ুন: হাওড়ায় রিক্সাচালকের দেহ মিলল পুকুর থেকে

ঘটনার জেরে সংশ্লিষ্ট এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷ যে বা যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, তাঁদের নিন্দায় মুখরিত হয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা৷ ঘটনার প্রেক্ষিতে এলাকায় রাত পাহাড়ার দাবি জানিয়েছেন তাঁরা৷ স্থানীয় বাসিন্দাদের মতে, যে বা যারা এই ঘটনা ঘটিয়ে থাকুক, তা সত্যি নিন্দনীয়৷ যদি মেরে ফেলায় উদ্দেশ্য ছিল, তাহলে সদ্যজাতকে এভাবে পৃথিবীর আলো দেখানোর কি উদ্দেশ্য ছিল, সেই প্রশ্নও তুলেছেন তাঁরা৷

আরও পড়ুন: হাওড়ায় কিশোরী অপহরণের অভিযোগে চাঞ্চল্য

স্থানীয় বাসিন্দাদের মতে, এই ধরণের ঘটনার ফলে সামাজিক অবক্ষয় আরও বাড়ছে৷ তাই এলাকার সুস্থ পরিবেশ বজায় রাখার জন্য ঘটনাস্থলে আসা পুলিশ কর্মীদের কাছে রাত পাহারার দাবি জানান তাঁরা৷ পুলিশ অবশ্য জানিয়েছে, এলাকায় পর্যাপ্ত নিরাপত্তার ব্যবস্থা রয়েছে৷ তবে শুধুমাত্র রাত পাহারার ব্যবস্থা করেই এই ধরণের সামাজিক অবক্ষয় আটকানো যাবে না৷ এজন্য চাই আরও বেশি নাগরিক সচেতনতা৷