নেলসন: ক্রাইস্টচার্চের প্রথম টি-২০ ম্যাচে ৭ উইকেটে হারতে হয়েছিল নিউজিল্যান্ডকে। ওয়েলিংটনের দ্বিতীয় টি-২০ ম্যাচে ২১ রানে জয় তুলে নিয়ে সিরিজে সমতা ফেরায় কিউয়িরা। এবার নেলসনের তৃতীয় টি-২০ ম্যাচে ইংল্যান্ডকে ১৪ রানে হারিয়ে ৫ ম্যাচের সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে গেল ব্ল্যাক ক্যাপসরা।

স্যাক্সটন ওভালে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামে নিউজিল্যান্ড। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটের বিনিময় ১৮০ রান তোলে তারা। অনবদ্য হাফ-সেঞ্চুরি করেন কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম। আগ্রাসী ব্যাটিং করেন মার্টিন গাপ্তিল। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ইংল্যান্ড ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৬৬ রান আটকে যায়। ডেভিড মালান ও জেমস ভিন্সের আতশিয় ব্যাটিং ব্যর্থ হয়।

নিউজিল্যান্ডের হয়ে ওপেন করতে নেমে কলিন মুনরো ৮ বলে ৬ রান করে আউট হন। অপর ওপেনার মার্টিন গাপ্তিল ১৭ বলে ৩৩ রান করে ক্রিজ ছাড়েন। তিনি ৭টি বাউন্ডারি মারেন। তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে উইকেটকিপার সেফার্ত মাত্র ৭ রান করে প্যাভিলিয়নের পথে হাঁটা লাগান। রস টেলরকে সঙ্গে নিয়ে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম দলকে বড় রানের পথে এগিয়ে নিয়ে যান। গ্র্যান্ডহোম আউট হন ব্যক্তিগত ৫৫ রানের মাথায়। ৩৫ বলের ইনিংসে তিনি ৫টি চার ও ৩টি ছক্কা মারেন। টেলর ক্রিজ ছাড়েন ২৪ বলে ২৭ রান করে। তিনি ২টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন।

শেষ দিকে জিমি নিশাম ১৫ বলে ২০ ও মিচেল স্যান্টনার ৯ বলে ১৫ রানের যোগদান রাখেন। ক্যাপ্টেনের সাউদি অপরাজিত থাকেন ১ রান করে। বল হাতে নজর কাড়েন কারান ভাইরা। স্যাম কারান ২৯ রানে ১ উইকেট নেন। টম কারান ২৯ রান খরচ করে নেন ২টি উইকেট। এছাড়া ১টি করে উইকেট নিয়েছেন মাহমুদ, ব্রাউন ও পারকিনসন।

ইংল্যান্ডের হয়ে ডেভিড মালান ৩৪ বলে ৫৫ রান করে সাজঘরে ফেরেন। তিনি ৮টি চার ও ১টি ছক্কা মারেন। ভিন্স করেন ৩৯ বলে ৪৯ রান। তিনি ৪টি চার ও ১টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন। বাকিদের মধ্যে ব্যান্টন ও ক্যাপ্টেন মর্গান ১৮ রান করে যোগদান রাখেন। টম কারান অপরাজিত থাকেন ১৪ রানে। স্যাম বিলিংস ১ ও স্যাম কারান ২ রান করে আউট হন। খাতা খুলতে পারেননি গ্রেগরি।

ফার্গুসন ও টিকনার ২টি করে উইকেট নিয়েছেন। ১টি করে উইকেট দখল করেছেন সাউদি ও স্যান্টনার। ম্যাচের সেরা হয়েছেন গ্র্যান্ডহোম।