লন্ডন: জয় দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করেছে দু’দলই৷ স্বাভাবিকভাবেই বাড়তি আত্মবিশ্বাস সঙ্গী করে নিউজিল্যান্ড ও বাংলাদেশ কেনিংটন ওভালে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি লড়াইয়ে নামছে৷ খাতায়-কলমে নিউজিল্যান্ড টাইগারদের থেকে এগিয়ে থাকলেও প্রথম ম্যাচের পারফরম্যান্সের নিরিখে মাশরাফিদের লড়াই থেকে ছিটকে দেওয়া যাবে না একেবারেই৷

কার্ডিফে নিউজিল্যান্ডের ‘শ্রীলঙ্কা বধ’ যদি বোলারদের সৌজন্যে সম্ভব হয়, তবে কেনিংটন ওভালে দক্ষিণ আফ্রিকার মতো শক্ত প্রতিপক্ষকে টক্কর দিতে বাংলাদেশ ক্রিকেটের তিন বিভাগেই নিজেদের উজাড় করে দিয়েছে৷ এই অবস্থায় শাকিব আল হাসানদের নিয়ে বাড়তি সতর্ক থাকতে বাধ্য কিউয়িরা৷

বাংলাদেশের পক্ষে ইতিবাচক বিষয় হলো, তারা বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ খেলেছে ওভালেই৷ স্বাভাবিকভাবেই পিচ ও পরিস্থিতির সঙ্গে নিউজিল্যান্ডের তুলনায় বেশি সড়গড় থাকবে তারা৷ নিউজিল্যান্ড তাদের প্রথম ম্যাচ খেলেছে কার্ডিফে৷ সোফিয়া গার্ডেন্সের পিচের সঙ্গে ওভালের বাইশগজের একটা তফাৎ চোখে পড়ছে ইতিমধ্যেই৷

প্রথম ম্যাচে দু’দলই সাহসী ক্রিকেট উপহার দিলেও সম্মুখ সমরে টসভাগ্য সঙ্গ দেয় নিউজিল্যান্ডকে৷ টসে জিতে কিউয়ি অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান বাংলাদেশকে৷ নিজের সিদ্ধান্তের স্বপক্ষে উইলিয়ামসন মেঘাচ্ছন্ন আবহাওয়া ও গত কয়েকদিন পিচ ঢাকা থাকার প্রসঙ্গকে কারণ হিসাবে উল্লেখ করেন৷

টস জিতে নিউজিল্যান্ড দলনায়ক বলেন, ‘শুরুর দিকে পিচে বোলাররা সাহায্য পাবে বলেই মনে হয়৷ আবহাওয়াও বোলারদের অনুকূল৷ প্রথম ম্যাচেও আমাদের একটা নির্দিষ্ট গেম প্ল্যান ছিল৷ আমরা সেই মতো ক্রিকেট খেলেছি৷ মাঠ আলাদা হলেও আমাদের লক্ষ্য থাকবে একই৷ সেকারণেই প্রথম একাদশে কোনও বদল করা হয়নি৷’

উইনিং কম্বিনেশন ধরে রেখে কিউয়িদের বিরুদ্ধে মাঠে নামছে বাংলাদেশও৷ তবে বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি মোর্তাজা স্পষ্ট জানান যে, প্রথম ম্যাচে আগে ব্যাট করে জয় পেলেও এই ম্যাচে তারা প্রথমে বল করতে চেয়েছিলেন৷ টসে জিতলে তিনি প্রথমে ব্যাট করতে ডাকতেন নিউজিল্যান্ডকে৷ কেননা, বৃষ্টির জন্য পিচ ঢাকা থাকায় শুরুর দিকে ব্যাটিং করা সহজ হবে না৷

নিউজিল্যান্ড দল: মার্টিন গাপ্তিল, কলিন মুনরো, কেন উইলিয়ামসন (ক্যাপ্টেন), রস টেলর, টম লাথাম (উইকেটকিপার), জিমি নিশাম, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, মিচেল স্ট্যান্টনার, ম্যাট হেনরি, লোকি ফার্গুসন ও ট্রেন্ট বোল্ট৷

বাংলাদেশ দল: তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, শাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম (উইকেটকিপার), মহম্মদ মিঠুন, মাহমুদুল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদি হাসান মিরাজ, মহম্মদ সঈফুদ্দিন, মাশরাফি মোর্তাজা (ক্যাপ্টেন) ও মুস্তাফিজুর রহমান৷