মাউন্ট মাউনগানুই: হোয়াইয়ওয়াশের পালটা হোয়াইটওয়াশ৷ টি-২০ সিরিজ হারের বদলা পরবর্তী ওয়ান ডে সিরিজেই নিয়ে নিল নিউজিল্যান্ড৷ স্বাভাবিকভাবেই আসন্ন টেস্ট সিরিজের আগে বিরাট কোহলিদের মনোবলে বড়সড় ধাক্কা দিল কিউয়িরা৷

নিউজিল্যান্ড সফরে পাঁচ ম্যাচের টি-২০ সিরিজে ৫-০ ব্যবধানে জয় তুলে নিয়েছে ভারত৷ ঘরের মাঠে হোয়াইটওয়াশের ধাক্কা সামলে উঠে এবার তিন ম্যাচের ওয়ান ডে সিরিজে কোহলিদের ক্লিন স্যুইপ করল নিউজিল্যান্ড৷ হ্যামিল্টন ও অকল্যান্ডে প্রথম দু’টি ওয়ান ডে জিতে আগেই সিরিজের দখল নিয়েছিল কিউয়িরা৷ এবার মাউন্ট মাউনগানুইয়ে তৃতীয় তথা শেষ ওয়ান ডে ম্যাচে ভারতকে ৫ উইকেটে পরাজিত করল কিউয়িরা৷

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের সেরা দলে ভারতের তিন

বে ওভালে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ভারত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৯৬ রান তোলে৷ জবাবে ব্যাট করতে নেমে নিউজিল্যান্ড ৪৭.১ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ৩০০ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়৷

ভারতের হয়ে ওপেন করতে নেমে আরও একবার ব্যর্থ হন ময়াঙ্ক আগরওয়াল৷ তিনি ১ রান করে জেমিসনের বলে বোল্ড হন৷ বিরাট কোহলি লোভ সংবরণ করতে না পেলে উইকেট দিয়ে আসেন৷ বেনেটের শর্ট পিচ বলে আপার কাট করতে গিয়ে থার্ডম্যান বাউন্ডারি লাইনে জেমিসনের হাতে ধরা পড়ে যান ভারত অধিনায়ক৷ পৃথ্বী শ প্রথম দু’টি ম্যাচে ২০ ও ২৪ রান করে আউট হয়েছিলেন৷ বে ওভালে সেট হয়ে যাওয়ার পর দূর্ভাগ্যজনক রান-আউট হয়ে সাজঘরে ফিরতে হয় পৃথ্বীকে৷ আউট হওয়ার আগে ৩টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ৪২ বলে ৪০ রান করেন তিনি৷

আরও পড়ুন: সচিন থেকে লারা, আক্রম থেকে পন্টিং, একঝলকে বুশফায়ার ক্রিকেট ব্যাশের কিছু মুহূর্ত

শ্রেয়স আইয়ারকে সঙ্গে নিয়ে চতুর্থ উইকেটের জুটিতে ১০০ রান যোগ করেন লোকেশ৷ শ্রেয়স ৯টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৬৩ বলে ৬২ রান করে নিশামকে উইকেট দেন৷ লোকেশ আউট হন কেরিয়ারের চতুর্থ ওয়ান ডে সেঞ্চুরি পূর্ণ করার পর৷ ৯ট চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ১১৩ বলে ১১২ রান করেন কএল৷ মণীশ পান্ডে ৬ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৪৮ বলে ৪২ রান করেন৷ শার্দুল ঠাকুর ৭ রান করে ক্রিজ ছাড়েন৷ জাদেজা ও সাইনি উভয়েই ব্যক্তিগত ৮ রানে অপরাজিত থাকেন৷ বেনেট ৬৪ রানে ৪ উইকেট দখল করেন৷ জেমিসন ও নিশাম নেন ১টি করে উইকেট৷

নিউজিল্যান্ড হয়ে ওপেনিং জুটিতে ১০৬ রান তোলেন গাপ্তিল ও নিকোলস৷ গাপ্তিল ৬টি চার ও ৪টি ছক্কার সাহায্যে ৪৬ বলে ৬৬ রান করেন৷ অপর ওপেনার নিকোলস ১০৩ বলে ৮০ রান করে সাজঘরে ফেরেন৷ তিনি ৯টি বাউন্ডারি মারেন৷ উইলিয়ামসন ও টেলর যথাক্রমে ২২ ও ১২ রান করে আউট হন৷ নিশাম ফেরেন ব্যক্তিগত ১৯ রানে৷ লাথাম ৩৪ বলে ৩২ ও কলিন ডি’গ্র্যান্ডহোম ২৮ বলে ৫৮ রান করে অপরাজিত থাকেন৷ যুবেন্দ্র চাহাল ৩টি এবং সার্দুল ও জাদেজা ১টি করে উইকেট নেন৷ ম্যাচের সেরা হয়েছেন নিকোলস ও সিরিজ সেরা হয়েছেন টেলর৷