স্টাফ রিপোর্টার, মহিষাদল: অবশেষে প্রতীক্ষার অবসান৷ পূর্ব মেদিনীপুরের মহিষাদলে গড়ে উঠতে চলেছে নতুন বিশ্ববিদ্যালয়।

মহিষাদলের ইটামগরা-২ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বামুনিয়া মৌজায় জেলার নতুন বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে উঠতে চলেছে। হলদিয়া-মেচেদা ৪১ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে বামুনিয়া মৌজায় হলদিয়া উন্নয়ন পর্ষদের সংরক্ষিত ২০ একর জায়গায় গড়ে উঠবে নতুন এই বিশ্ববিদ্যালয়।

আরও পড়ুন: অস্থায়ী থেকে স্থায়ী হলেন পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য

সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে চলতি বছরের জুলাই মাস থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের পঠনপাঠন শুরু হবে। জানা গিয়েছে, প্রাথমিকভাবে মহিষাদল রাজ কলেজ ক্যাম্পাসে নয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পঠনপাঠন শুরু হবে। রবিবার মহিষাদলের প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয়ের জায়গা ও মহিষাদল রাজ কলেজ পরিদর্শন করেন উচ্চশিক্ষা দফতরের দুই সদস্যের প্রতিনিধিদল।

প্রতিনিধি দলে ছিলেন উচ্চশিক্ষা দফতরের বিশেষ সচিব শিলাদিত্য বসুরায় এবং নেতাজি মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা অধিকর্তা শুভাশঙ্কর সরকার। এদিন দুপুর ১২ টা নাগাদ তাঁরা মহিষাদলের ইটামগরা-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের বামুনিয়া মৌজায় যান। তাঁদের স্বাগত জানাতে সেখানে উপস্থিত ছিলেন হলদিয়ার মহকুমাশাসক পূর্নেন্দুশেখর নস্কর, মহিষাদলের বিডিও জয়ন্ত দে, মহিষাদল পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শিউলি দাস, সহ-সভাপতি তিলক চক্রবর্তী, ইটামগুরা-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান রামকৃষ্ণ দাস সহ অন্যরা।

আরও পড়ুন: পশ্চিমবঙ্গের কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে এ বার ভার্চুয়াল ক্লাসরুম

প্রতিনিধিদলটি প্রথমে প্রস্তাবিত নয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের জায়গা পরিদর্শন করে। জায়গার বিভিন্ন চিত্র খতিয়ে দেখেন। এলাকার পরিদর্শনের পর প্রতিনিধিদল মহিষাদল রাজ কলেজে উপস্থিত হন। সেখানে কলেজের অধ্যক্ষ ও পরিচালন কমিটির সঙ্গে কথা বলেন। এরপর তাঁরা মহিষাদল রাজবাড়ি পরিদর্শন করে কলকাতার উদ্দেশে রওনা দেন।

পরিদির্শনে এসে শুভাসঙ্কর সরকার জানান, বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার মতো পরিকাঠামো রয়েছে। আমরা এলাকা পরিদর্শন করেছি। তার একটি রিপোর্ট দফতরে জমা দেওয়া হবে। একটি জেনারেল বিভাগের বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার জন্য যে পরিমাণ জায়গার প্রয়োজন, তা এখনে রয়েছে। তাছাড়া জায়গাটি জাতীয় সড়কে পাশেই হওয়ায় ছাত্রছাত্রীদের ভীষন সুবিধা হবে। জায়গা ও পরিবেশ দুটি প্রতিনিধিদের মনে ধরেছে বলে তাঁরা জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: বিশ্ববিদ্যালয় তৈরির ঘোষণার পরই কাজিয়া শুরু দলের অন্দরে