স্টাফ রিপোর্টার, বারুইপুর: দশ শয্যা বিশিষ্ট অন্তর্বিভাগ চালু হল দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারুইপুরের শিখরবালি-২ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার ইন্দ্রপালা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে৷ আগে কেবলমাত্র বহির্বিভাগ চললেও রবিবার থেকে শুরু হল অন্তর্বিভাগ৷

এই উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, রাজ্য বিধানসভার অধ্যক্ষ তথা বারুইপুর পশ্চিমের বিধায়ক বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়৷ পাশাপাশি উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের স্বাস্থ্য বিভাগের অধিকর্তা ডঃ অজয় চক্রবর্তী, দক্ষিণ ২৪ পরগনা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক সোমনাথ মুখোপাধ্যায়, বারুইপুর পুরসভার চেয়ারম্যান শক্তি রায়চৌধুরী, মহকুমা শাসক দেবারতি সরকার, বারুইপুর মহকুমার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক মৃদুল ঘোষ এবং সুপার জয়া বন্দ্যোপাধ্যায়-সহ অন্যান্যরা৷

আরও পড়ুন: পরকীয়া সম্পর্কের জেরে স্ত্রীকে খুন স্বামীর

হাসপাতালের দশ শয্যার অন্তর্বিভাগের উদ্বোধনের পর মঞ্চে বক্তব্য রাখতে ওঠেন বিধায়ক বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এদিন তিনি ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘‘বারুইপুর হাসপাতালে কেন সবক্ষেত্রে রোগীদের রেফার করা হয় তা নিয়ে আমি সুপারের কাছেও জানতে চেয়েছি৷ সামান্য অর্থপেডিক রোগী, তাকেও রেফার করা হচ্ছে৷ বেসরকারি হাসপাতালে টাকার গুনাগার দিয়ে আবার সরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসতে আসতেই রোগী মারা যাচ্ছেন৷ আগেও বলেছি যে হাসপাতালে রেফার করা হচ্ছে সেখানে একটা বেড রয়েছে কি না, তা জেনে নিয়ে রোগীকে রেফার করা হোক৷ এর জন্য ১০৪ টোল ফ্রী নম্বর-এর কথাও স্বাস্থ্য অধিকর্তা ভাবছে।’’

বর্তমানে হাসপাতালে দশটি বেড এসে যাওয়ায় আশা রাখা হচ্ছে ইন্দ্রপালা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ২৪ ঘণ্টা চিকিৎসা পরিষেবা পাওয়া যাবে৷ পাশাপাশি হাসপাতালে সর্বক্ষণের জন্য ৩ জন নার্স, ৩ জন চিকিৎসক থাকবেন বলেও জানা গিয়েছে৷ এলাকাবাসীর জন্য সুখবর নিয়ে আসেন স্বাস্থ্য আধিকারিক৷

আরও পড়ুন: ‘মোদীর ঘুড়ি ইন্দোনেশিয়া থেকেই কেটে যাবে’

তিনি জানান, স্বাস্থ্য কেন্দ্রে প্রসূতি মা সহ অন্য রোগের চিকিৎসাও এবার থেকে চালু হল৷ আর কোনও রোগীকে এলাকার বাইরে যেতে হবে না৷ জানা গিয়েছে, প্রাথমিক ভাবে দশটি বেডের মধ্যে পাঁচটিতে পুরুষদের ও বাকি পাঁচটিতে মহিলাদের রাখা হবে৷ তবে আরও বেডের দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলেও এদিন স্বাস্থ্য আধিকারিক জানিয়েছেন৷