নয়াদিল্লিঃ  ডিজিটাল ভারত তৈরির স্বপ্ন দেখছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই মতো সমস্ত কিছুই এখন স্মার্ট। আধার কার্ড থেকে রেশন কার্ড সমস্ত কিছুই এখন স্মার্ট কার্ডের আওতায়। তাই এবার একেবারে নতুন রুপে ভোটার কার্ড আনতে চলেছে ভারতীয় নির্বাচন কমিশন। যা দেখতে একেবারে অন্য ধরনের। অবশ্যই স্মার্ট। জানা যাচ্ছে, নয়া এই ভোটার কার্ড রঙিন এবং দেখতে আরও অথেন্টিক হতে চলেছে।

নয়া এই ভোটার কার্ড শুধু রুপেই বদলাচ্ছে তা নয়, গুণেও অনেকটা বদলাচ্ছে। যেমন এর সঙ্গে থাকবে আরও বেশ কিছু নতুন ফিচার। নিরাপত্তার ক্ষেত্রেও এই কার্ড অনেক বেশি স্মার্ট। গোটা দেশে ভোটার সঙ্গতি আনতে ভোটার কার্ডের এই ভোল বদলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন, এমনটাই জানা গিয়েছে।

সর্বভারতীয় এক সংবাদপত্রে (এই সময়) প্রকাশিত খবর মোতাবেক ইতিমধ্যে নয়া ভোটার কার্ডের প্রাথমিক কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। কর্নাটকে এর কাজ চলছে। সে রাজ্যের প্রধান নির্বাচন আধিকারিক সঞ্জীব কুমার জানিয়েছেন, ‘রাজ্যের যে সব নাগরিক ১৮ বছরে পা দিয়েছেন এবং নতুন ভোটার কার্ডের জন্যে আবেদন করেছেন তাঁরা ২৫ জানুয়ারির মধ্যে ভোটার কার্ড পেয়ে যাবেন।’

একেবারে প্লাস্টিক দিয়ে তৈরি এই কার্ডে মাল্টি লেয়ার থাকবে। থাকবে নির্বাচন কমিশনের হলোগ্রাম এমবস করা। শুধু তাই নয়, জাল কার্ড রুখতে প্রত্যেক কার্ডের সঙ্গে আলাদা আলাদা বার কোড থাকবে বলে জানানো হয়েছে। এখানেই শেষ নয়, সবদিক থেকে নয়া এই ভোটার কার্ডকে সুরক্ষিত রাখা হচ্ছে। জানা যাচ্ছে বার কোড ভোটার কার্ডের সঙ্গে ভোটারের যাবতীয় তথ্য যোগ করার ভাবনাও রয়েছে নির্বাচন কমিশনের। পরবর্তী সময়ে শুধুমাত্র বার কোড রিডারের সাহায্যেই ভোটারের সব তথ্য হাতের মুঠোয় চলে আসবে।

মাত্র ৩০ টাকা খরচ হবে এই কার্ড তৈরিতে। আরও কম দামে যাতে এই কার্ড তৈরি করা যায় তা নিয়ে ইতিমধ্যে ভাবনা চিন্তা শুরু হয়েছে। নির্বাচন আধিকারিক সঞ্জীব কুমার জানিয়েছেন, বহু ভোটারের এখনও পুরনো সাদা-কালো ভোটার কার্ড রয়েছে তাঁরাও চাইলে নতুন কার্ডের আবেদন করতে পারেন। কম পক্ষে ১৫ দিনের মধ্যে হাতে চলে আসবে নতুন কার্ড, এমনটাই কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে।