স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: রাজ্যের রেশন দোকানগুলিতে খাদ্যশষ্য সরবরাহে স্বচ্ছতা আনতে রাজ্য খাদ্য দফতর চালু করতে চলেছে নয়া নিয়ম৷ কি সেই নিয়ম? খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানিয়েছেন চলতি বছরে পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে ‘ই পোস’ পদ্ধতি চালু করবে রাজ্য সরকার৷

বারাসাতে এদিন খাদ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন, চলতি বছরেই আগামী ডিসেম্বর মাস থেকে রাজ্যের ৬০০ রেশন দোকানে প্রথম পর্যায়ের পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে ‘ই পোস’ পদ্ধতি চালু করতে চলেছে রাজ্য খাদ্য দফতর৷ উত্তর ২৪ পরগনার বারাসাত রবীন্দ্র ভবনে শুক্রবার রাতে সাংবাদিকদের একথাই জানালেন রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী৷

আরও পড়ুন :রাজ্যের বেকার যুবকদের জন্যে দারুণ প্রকল্পের ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

রেশন দোকানের মালিকদের ভোটার কার্ডের সঙ্গে খাদ্য দফতরের সার্ভারের ইন্টারনেট লিংক করে এই পদ্ধতি চালু করা হবে বলে জানা গিয়েছে৷ তৃণমূল যুব কংগ্রেসের দলীয় এক অনুষ্ঠানে সংবাদ মাধ্যমকে একথাই বলেন তিনি৷ কলকাতা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় আপাতত পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে ৬০০ রেশন দোকানে ই পোস মেশিন বসানো হবে বলে খাদ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন৷

তিনি আরও বলেন, ‘খাদ্যশষ্য যাতে কোনও ভাবেই নষ্ট না হয় এবং গ্রাহকরা যাতে ন্যায্য খাদ্যশষ্য পরিমাণ মত পেতে পারে৷ সেইজন্য ই পোস ব্যবস্থা চালু করার উদ্যোগ নিয়েছে রাজ্য খাদ্য দফতর৷ ই পোস ব্যবস্থার মাধ্যমে খাদ্য ভবন থেকে সার্ভারের মাধ্যমে বিভিন্ন রেশন দোকানে সরাসরি নজরদারি চালাতে পারবে খাদ্য দফতরের আধিকারিকরা।

আরও পড়ুন : আইন ছাড়া রাম মন্দির নির্মাণের উপায় বললেন রামদেব

জ্যোতিপ্রিয় বাবু বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে ৬০০ টি রেশন দোকানে পাইলট প্রজেক্ট হিসেবে ই পোস সিষ্টেম সাফল্য পেলে আগামীদিনে খুব শীঘ্রই রাজ্য জুড়ে সমস্ত রেশন দোকানেই এই ‘ই পোস’ মেশিন বসানো হবে৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ