নয়াদিল্লি: নেভি এয়ারক্রাফট কেরিয়ার আইএনএস বিক্রমাদিত্যে সফল অবতরণ করেছে তেজস এন ফাইটার জেট। এই যুদ্ধবিমানের উড়ানে ছাড়পত্র দিয়েছে এয়ারোনট্যিক্যাল ডেভেলপমেন্ট এজেন্সি বা এডিএ। দুটি ইঞ্জিন সম্বলিত তেজস সম্পূর্ণ দেশীয় পদ্ধতিতে তৈরি যুদ্ধ বিমান। এনডিটিভি জানাচ্ছে ভারতীয় বায়ু সেনার স্কোয়াড্রন সার্ভিসে রয়েছে এডিএ। এদের হাতেই গড়া তেজস এন ফাইটার জেট।

ভারতীয় বায়ুসেনায় তেজসের অন্তর্ভুক্ত ও এর ভবিষ্যত নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের সঙ্গে। উপস্থিত ছিলেন নৌসেনা ও বায়ুসেনার উচ্চ পদস্থ আধিকারিকরা। ফাইটার জেটের অভাব মেটাতেই তেজসের মত লাইট কমব্যাট এয়ারক্রাফট নিয়ে আসা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। তেজসের কার্যকারিতা নিয়ে বিস্তারিত তথ্য নিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক।

এর অপারেশনাল রিকোয়ারমেন্টস নিয়েও আলোচনা হয়েছে বলে খবর। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বক্তব্যে বারবারই উঠে এসেছে আত্মনির্ভরতার শ্লোগান। দেশের মাটিতে তৈরি জিনিসের ওপরে জোর দিয়েছেন তিনি। তাঁর মতে তবেই ঘুরে দাঁড়াতে পারবে ভারত। সেই শ্লোগানের সঙ্গে তাল মিলিয়েই এবার বায়ুসেনায় যুক্ত হবে তেজস। স্বনির্ভর হবে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকও। এই ফাইটার জেটটি অপারেট করবে দুটি এয়ারক্রাফট কেরিয়ার।

আইএনএস বিক্রমাদিত্য ও আইএনএস বিক্রান্ত। এর আগে ৪০ টি তেজস আনতে চেয়েছিল বায়ুসেনা। কিন্তু, ক্যাগের রিপোর্টে প্রশ্ন থেকে গিয়েছিল অনেকগুলি বিষয় নিয়ে। এয়ারক্রাফটটির ওজন, সুরক্ষা, জ্বালানি বহনের ক্ষমতা সবকিছু নিয়েই প্রশ্ন উঠেছিল। তবে এবার সেইসব বিষয়গুলি নজরে রেখেই বানানো হয়েছে বলে দাবি করেছে ডিআরডিও। অন্যদিকে, আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে ফ্রান্সের কাছ থেকে ৩২ টি রাফায়েল ফাইটার কিনবে ভারত। ইতিমধ্যে ভারতের হাতে চলে এসেছে বেশ কয়েকটি রাফায়েল।

আইএনএস বিক্রমাদিত্যে একাধিকবার সফল অবতরণ ও উড়ানের পরেই ছাড়পত্র পেয়েছে তেজস। গোয়ার উপকূলে এই পরীক্ষামূলক উড়ান সফল হয়েছে বেশ কয়েকবার। জানুয়ারি থেকে চলছে এর পরীক্ষানিরীক্ষা। অবতরণের সময় তেজসের গতি ছিল ২৪৪ কিমি প্রতি ঘন্টা। করোনা আতঙ্কের জন্য আটকে থাকবে না রাফায়েল আমদানি, সাফ জানিয়ে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং।

]মঙ্গলবার রাজনাথ সিং ও ফ্রান্সের আর্মড ফোর্সের মন্ত্রী এমএস প্লোরেন্স পার্লি এই নিয়ে আলোচনা করেন। এক টেলিফোনিক বৈঠকে দুই দেশের মন্ত্রী রাফায়েল আমদানি রপ্তানিতে সম্মত হয়েছেন। পারস্পরিক বোঝাপড়া ও দুই দেশের প্রতিরক্ষা খাতের সমন্বয় বৃদ্ধি করতে এই চুক্তি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে জানিয়েছে নয়াদিল্লি ও প্যারিস। উল্লেখ্য রাফায়েলের মধ্যে থাকা মেটিওর মিসাইল ৩০০ কিলোমিটার যেতে পারে।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।