কলকাতা: সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে সাধারণ মানুষের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় মাধ্যম হল ফেসবুক। বিগত কয়েক বছরের মধ্যে ক্রেতাদের কাছে যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে এই মাধ্যম। আর এবারে tiktok কে টেক্কা দেওয়ার জন্য ফেসবুকের তরফে নিয়ে আসা হল এক নতুন প্ল্যাটফর্ম। যদিও বাজারে tiktok কে প্রতিযোগিতাতে ফেলার জন্য একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছিল। তবে ফেসবুকের তরফে এই ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়ার জেরে ক্রমেই আকর্ষণ বাড়ছে সাধারণের।

মূলত এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে র‍্যাপারদের কথা ভেবেই। সঙ্গীতের মধ্যে একটি অন্যরকম আকর্ষণীয় ভাগ র‍্যাপ। একাধিক মানুষজন এই গান শোনেন এবং র‍্যাপ গায়কদের পছন্দ করেন। কিন্তু উঠতি র‍্যাপারদের জন্য অনেক সময়েই সঠিক প্ল্যাটফর্ম না পাওয়ার জন্য যথেষ্ট অসুবিধার মধ্যে পড়তে হয়। আর সেই কারণে মনে করা হচ্ছে নিয়ে আসা হয়েছে এই সুবিধা। এর জেরে সুবিধা হবে সাধারণ মানুষের। তবে জানা গিয়েছে ইতিমধ্যে এই প্ল্যাটফর্মের বেশ কিছু পরেখা চলছে। আর তা শেষ করা হলেই বাজারে নিয়ে আসা হবে এই প্ল্যাটফর্ম।

আরো পোস্ট- স্বাস্থ্যসাথী কার্ডেও চিকিৎসা হলো না বৃদ্ধার, মারা গেলেন তিনি

অন্যান্য ভিডিও প্ল্যাটফর্মের মত এই প্ল্যাটফর্ম বানানো হয়নি। সকল র‍্যাপারদের কথা মাথাতে রেখে এই প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা হয়েছে। যার ফলে সুবিধা হবে সকলের। এছাড়াও এই প্ল্যাটফর্মে একাধিক মোডের সুবিধা রয়েছে। আর তার জেরে যথেষ্ট সুবিধা হবে। মনে করা হচ্ছে দ্রুত বাজারে নিয়ে আসা হবে এই প্ল্যাটফর্ম। বিশেষ করে যারা র‍্যাপ সঙ্গিত ভালবাসেন তাদের কাছে এই প্ল্যাটফর্ম যথেষ্ট জনপ্রিয় হয়ে উঠবে বলে মনে করা হচ্ছে। এই bars app এর সাহায্যে নিজের ফোনের ক্যামেরা ব্যবহার করেই ভিডিও বানাতে পারবেন যে কেউ। জানানো হয়েছে করোনা অতিমারীর জেরেই এবারে এই প;লাতফ্রম বানানো হয়েছে। এর ফলে সহজেই দর্শকদের কাছে আরও বেশি করে পৌঁছে যাওয়া যাবে। অর্থাৎ করোনা পরবএতী সময়ে সঙ্গেএত প্রিয় মানুষদের জন্য এবারে এক নতুন দিক খুলে দিল ফেসবুক আর এর ফলে মনে করা হচ্ছে আরও বেশি করে সুবিধা পাবেন সাধারণ মানুষজন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।