স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আলিপুর চিড়িয়াখানায় খুশির হাওয়া৷ জন্ম নিল জিরাফ শাবক৷ এই নিয়ে দশম জিরাফ জন্ম নিল আলিপুর চিড়িয়াখানায়৷

আলিপুর চিড়িয়াখানায় প্রায় সবরকমের জন্তুই রয়েছে। আর সবথেকে বেশি যে জন্তু আছে তা হল জিরাফ। বর্তমানে চিড়িয়াখানায় জিরাফের সংখ্যা ন’টি। তাই চিড়িয়াখানায় জন্তু জানোয়ারের মধ্যে বৈচিত্র্য আনতে এবার ব্যবহার করা হবে জিরাফগুলিকে।

চিড়িয়াখানার অধিকর্তা আশিস কুমার সামন্ত জানান, গত ২৩শে মে জিরাফ তৃণা একটি মেয়ে জিরাফ শাবক জন্ম দেয়৷ এরআগে, তার আরও চারটি সন্তান হয়েছে৷ সদ্যোজাত শাবক সুস্থ রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি৷
আর কিছুদিনের মধ্যেই ওই শাবক জিরাফ মুনিয়াকে সাধারণ মানুষ দেখতে পাবেন বলে জানানো হয়েছে৷ এই নিয়ে ১০টি জিরাফ রয়েছে আলিপুর চিড়িয়াখানায়৷

কর্মীদের প্রশংসা করেন কর্মীদের প্রশংসা করেন অধিকর্তা আশিস কুমার সামন্ত৷ তিনি বলেন জিরাফের দেখভাল করার কর্মীদের ঐকিন্তিক চেষ্টাতেই জিরাফরা ভালো ও সুস্থ রয়েছে৷ সাধারণত একটি জিরাফের ৩৪০-৩৭০ দিনের মধ্যে বাচ্চা হয়৷ ২৩ শে মে সকাল সাড়ে নটা নাগাদ মুনিয়া জন্ম নেয় বলে জানিয়েছেন চিডি়য়াখানার অধিকর্তা৷ অতিরিক্ত গরমের জন্য শাবকটির বিশেষ যত্ন নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি৷

২০১৭ সালে আলিপুর চিড়িয়াখানার নতুন আকর্ষণ হিসেবে নিয়ে আসা হয় এক ঝাঁক নতুন অতিথিকে৷ নতুন অতিথি হিসেবে এল চারটে ইস্টার্ন গ্রে ক্যাঙারু। পরে নিয়ে আসা হয় দুটি জাগুয়ার, দুটি সিংহ, ছটা মাউস ডিয়ার।

তার আগে, আলিপুর থেকে হাতি পাঠানো হয় অসমের চিড়িয়াখানায়। জানা গিয়েছে, এই নটি জিরাফের পাঁচটি দেশের অন্য চিড়িয়াখানায় পাঠানো হবে। ইতিমধ্যে, গুজরাত চিড়িয়াখানার সঙ্গে কথা হয়েছে সিংহ ও জিরাফ আদানপ্রদানের ব্যাপারে। সব ঠিকঠাক চললে গীর অরণ্য থেকে কলকাতায় আনা হবে সিংহ এবং এখান থেকে যাবে জিরাফ। শোনা যাচ্ছে, জিরাফের বদলে হায়দরাবাদ থেকে আসবে লেপার্ড, চিতা বা ব্ল্যাক প্যান্থার। অন্যদিকে, জাপান থেকে জিরাফের বদলে আসতে পারে লালা ক্যাঙ্গারু।

অধিকর্তা জানিয়ে ছিলেন, আলিপুর চিড়িয়াখানায় অনেক জিরাফ রয়েছে। তার মধ্যে কয়েকটাকে দেশের মানুষের স্বার্থে অন্য জায়গায় পাঠানো হবে। সেই নিয়ে নানা চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা চলছে। সব ঠিক থাকলে সামনে দুই মাসের মধ্যে লাল ক্যাঙ্গারু কলকাতায় আসছে।