বাঁ দিকে প্রতীকি ছবি।

নয়াদিল্লি: নোটবন্দির পর একাধিক ভিন্ন রঙের নোট আসতে দেখা গিয়েছে বাজারে। ৫০, ১০০, ৫০০- সব নোটই বদলে গিয়েছে একে একে। তবে এবার তালিকায় নতুন সংযোজন ২০ টাকার কয়েন।

৫ কিংবা ১০ টাকার মত আসছে ২০ টাকার কয়েনও। বুধবার অর্থমন্ত্রকের তরফ থেকে এই সংক্রান্ত নোটিশ দেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে ২০ টাকার ওই কয়েন হবে ২৭ মিলিমিটারের। আর এটির শেপ হল ‘ডোডেগন’ অর্থাৎ কয়েনটি অন্যান্য কয়েনের মত গোলাকার হবে না। এটি হবে বহুভুজ আকারের। ১২টি ভুজ থাকবে এই কয়েনের আকারে।

১০ টাকার কয়েনটিও ২৭ মিলিমিটারের, তবে শেপটা বহুভুজ নয়। আর ১০ টাকার কয়েনের মত ২০ টাকার কয়েনের ধারগুলিতে কিছু আঁকা বা লেখা থাকবে না। তবে ১০ টাকার কয়েনের সঙ্গে মিল থাকবে। ঠিক যেমন ২০ টাকার কয়েনের দুটি স্তর আছে, অর্থাৎ মাঝে একরকম রঙ আর ধারে একরকম, ২০ টাকার কয়েনটিও হবে সেরকম। ধারের দিকে থাকবে ৬৫ শতাংশ তামা, ১৫ শতাংশ জিংক বা দস্তা আর ২০ শতাংশ নিকেল। মাঝের দিকটা তৈরি হবে ৭৫ শতাংশ তামা, ২০ শতাংশ জিংক ও পাঁচ শতাংশ নিকেল দিয়ে।

কয়েনের ডিজাইনের বিষয়ে এই নোটিফিকেশনের বাইরে আর কিছু জানানো হয়নি নোটিশে।

উল্লেখ্য, বছর দশেক আগে ১০ টাকার কয়েনের নোটিশ প্রকাশ করেছিল অর্থমন্ত্রক। পরে এত ধরনের ১০ টাকার কয়েন বাজারে আসে যে মানুষ সঠিকটা বুঝতে পারে না। অনেকেই জাল ভেবে ১০ টাকার কয়েন নিতেও অস্বীকার করে। সম্প্রতি, রিজার্ভ ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া জানিয়ে দিয়েছে যে বাজারে থাকা ১৪ রকমের ১০ টাকার কয়েনই বৈধ।