নয়াদিল্লি: দেশ জোড়া চাপের মুখে পড়ে অবশেষে পিছু হঠল যোগগুরু রামদেবের সংস্থা পতঞ্জলি। এবার পতঞ্জলি যে দাবি করল, তার সঙ্গে আগের বক্তব্যের কোনও সঙ্গতি নেই। পতঞ্জলির সিইও বালকৃষ্ণ জানিয়েছেন তারা কখনও দাবি করেননি যে তাঁদের তৈরি ওষুধ করোনা সারাবে। এটাও নাকি বলা হয়নি যে সাতদিনের মধ্যে এই ওষুধ তার কার্যকারিতা দেখাবে।

পুরোপুরি ইউ টার্ন নিয়ে এই সংস্থার এবার দাবি তাঁরা শুধু মিডিয়ার সামনে ট্রায়াল কিট এনেছিলেন করোনিলের। তাঁদের দাবি ছিল এটা করোনা সারাবে না। এরকম কোনও ওষুধই তাঁরা বের করেননি। তাঁদের বক্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। উত্তরাখন্ড ড্রাগ ডিপার্টমেন্টের জারি করা বিবৃতি খারিজ করে পতঞ্জলি করোনা কিট নামে কোনও ওষুধই তাঁরা বের করেননি। এটাও প্রচার করেননি যে তাঁদের তৈরি ওষুধ করোনা সারাবে।

পতঞ্জলি দাবি করে তাঁরা যে ওষুধ তৈরি করেছে, তাঁর বাণিজ্যিকরণ এখনও হয়নি। ফলে কোনও আয় তারা এই ওষুধ থেকে করেননি। করোনিল কিট নামের কোনও ওষুধও তাঁরা বিক্রি করেননি। যা মিডিয়া দাবি করছে যে সেটি করোনার ওষুধ বলে চালিয়েছেন তাঁরা। বালকৃষ্ণ মঙ্গলবার বলেন পতঞ্জলি শুধু দিব্য স্বসরি বটি, দিব্য করোনিল ট্যাবলেট ও দিব্য অনু তেলের প্রচার করেছে।

উল্লেখ্য দিন কয়েক আগেই উত্তরাখণ্ডের হরিদ্বারে পতঞ্জলী যোগপীঠে এই ওষুধের আনুষ্ঠানিক আত্মপ্রকাশ ঘটানো হয়। এর আগে, পতঞ্জলীর সিইও আচার্য বালকৃষ্ণ দাবি করেছিলেন তাঁর সংস্থা যে ওষুধ নিয়ে আসছে, তা পুরোপুরি করোনা দূর করতে সক্ষম।

যোগগুরু রামদেব জানিয়ে ছিলেন কোনও করোনা আক্রান্ত রোগিকে যদি করোনিল দেওয়া হয়, তবে ১০০ শতাংশ সুস্থ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এই ওষুধ তৈরি হয়েছে অশ্বগন্ধা, গিলয় বা গুলঞ্চ ও তুলসী দিয়ে, বলে জানিয়েছে পতঞ্জলী।

বালকৃষ্ণ এই বিষয়ে একটি ট্যুইট করেন। তিনি লেখেন সর্বপ্রথম করোনার ওষুধ বাজারে আনতে পেরে গর্বিত। করোনিল মঙ্গলবার বেলা ১২টার সময় হরিদ্বারে পতঞ্জলী যোগপীঠে লঞ্চ করা হবে। বালকৃষ্ণ দাবি করেছিলেন, এই আয়ুর্বেদিক ওষুধটি করোনা রোগিদের পাঁচ থেকে চোদ্দ দিনের মধ্যে সারিয়ে তুলবে।

এটাও জানানো হয়েছিল যে ২৮০ জন করোনা রোগির ওপর পরীক্ষা নিরীক্ষা চালিয়েছে পতঞ্জলি। প্রত্যেকেই এই ওষুধ খেয়ে সুস্থ হয়ে গিয়েছেন। এরপরেই বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টিতে হস্তক্ষেপ করে কেন্দ্র।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV