মুম্বই: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সোশ্যাল ডিসট্যানসিং এবং লকডাউনের ডাকে সারা দিয়ে নিজেদের ঘরবন্দি করেছে গোটা দেশ। একধাক্কায় অস্বাভাবিক পরিমাণ বেড়ে গিয়েছে ইন্টারনেট ব্যবহারের হার। ফলস্বরুপ, সরকার এবং টেলিকম অপারেটরদের চিন্তায় ফেলছে মোবাইল কোম্পানির পরিকাঠামো।

ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রি অস্বাভাবিক এই ইউসেজ নিয়ে অবগত যা একটি বড় চ্যালেঞ্জের মতন সামনে এসেছে বর্তমান সময়ে। তবে তাঁরা একনিষ্ঠভাবে চেষ্টা করছেন যাতে দেশের প্রত্যেক নাগরিক এইরকম সময়ে যেকোনো জায়গা থেকে যেকোনো সময় সমানভাবে মোবাইল নেটওয়ার্ক অ্যাকসেস করতে সক্ষম হয়।

সাধারণের জন্য পরিষেবায় যাতে কোনও বিঘ্ন না ঘটে সে বিষয়ে একটি মিটিং করা হয়েছে। ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রির প্রধান স্টেকহোল্ডারদের সঙ্গে আলোচনায় সেখানে উপস্থিত ছিলেন স্টার এবং ডিসনি ইণ্ডিয়ার চেয়ারম্যান উদয় শঙ্কর। ডিজিটাল প্লাটফর্মকে ব্যবহার করেই এই মিটিং করা হয়েছে যেখানে সোনির তরফে এনপি সিং, গুগলের তরফে সঞ্জয় গুপ্তা, ফেসবুকের তরফে অজিত মোহন, ভায়াকম ১৮ থেকে সুধাংশু ভাটস, অ্যামাজন প্রাইম ভিডিওর তরফে গৌরব গান্ধী, জি থেকে পুনিত গোয়েঙ্কা, টিকটকের তরফে নিখিল গান্ধী, নেটফ্লিক্স থেকে অম্বিকা খুরানা, এমএক্স প্লেয়ার থেকে করণ বেদি এবং হটস্টার থেকে বরুণ নারাং অংশগ্রহণ করেছেন।

পরিবর্তিত পরিস্থিতির উপর ভিত্তি করে ডিজিটাল ইন্ডাস্ট্রি বিরাট সংখ্যক মানুষের জন্য পরিষেবা ধরে রাখতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। উপভোক্তাদের নির্বিঘ্ন পরিষেবা দিতে মোবাইল কোম্পানির পরিকাঠামো যাতে শক্তপোক্ত থাকে তা নিয়েও ভাবছে কোম্পানিরা।

সর্বসম্মতিক্রমে, এই সিদ্ধান্তের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে। তবে ব্যাতিক্রমী সিদ্ধান্ত হিসেবে, সকল কোম্পানি সাময়িকভাবে HD (হাই-ডেফিনিশন) ultra-HD (আলট্রা-হাইডেফিনিশন) কনটেন্ট SD (স্ট্যান্ডার্ড ডেফিনিশন 480p) ভারসানে খুলবে অথবা শুধুই স্ট্যান্ডার্ড ডেফিনিশন (480p) ভারসানে উপলব্ধ থাকবে। আপাতত, লকডাউনের ২১ দিন অবধি অর্থাৎ ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত এই পরিবর্তিত ব্যবস্থা বজায় থাকবে।