নয়াদিল্লি : অবশেষে ভুল স্বীকার। নয়াদিল্লির চাপে পিছু হঠে বিতর্কিত ম্যাপ সংশোধন করার কথা জানাল নেপাল সংসদ। ১৯শে মে নয়া ম্যাপ প্রকাশ করে নেপাল। আর সেই ম্যাপে নেপালের অন্তর্গত হিসেবে দেখানো হয় ভারতীয় সীমানার লিপুলেখ, কালাপানি ও লিম্পিয়াধুরা এলাকাকে। এরপরেই পালটা চাপ তৈরি করে নয়া দিল্লি।

নেপাল ও ভারতের মধ্যে ১৬ হাজার কিলোমিটারের বেশি খোলা সীমান্ত রয়েছে। তার মধ্যে বেশ কয়েকটি জায়গা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে বিরোধ রয়েছে। রবিবার সেই বিতর্কিত ম্যাপ সংশোধন করা হবে বলে জানিয়েছে নেপাল। এই নিয়ে সংসদে ভোটাভুটি হয়। বিরোধী নেপালি কংগ্রেস ম্যাপ সংশোধনের পক্ষে ভোট দেয়। এই ম্যাপ সংশোধনের জন্য দুই তৃতীয়াংশ সমর্থন প্রয়োজন, যা মিলেছে বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, ভারতের প্রতিবেশী এই দেশে মন্ত্রিসভার একটি বৈঠকের পর সরকারের মুখপাত্র ও অর্থমন্ত্রী ইউভরাজ খাটিওয়াদা জানান, নতুন এই মানচিত্র দ্রুত কার্যকর হবে। তিনি বলেন, নতুন এই মানচিত্র স্কুল-কলেজের বইপত্রে, সরকারি প্রতীকে এবং অফিস-আদালতের সব কাগজপত্রে এখন থেকেই ব্যবহার করা হবে।

ভারত কিছুদিন আগে নতুন একটি রাজনৈতিক মানচিত্র প্রকাশ করে যেখানে এই দুই অংশ ভারতের অন্তর্ভুক্ত হিসেবে দেখানো হয়। গত ৮ মার্চ ভারতীয় রাজ্য উত্তরাখণ্ডের পিথোরাগড়-লিপুলেখের মধ্যে একটি লিংক রোডের উদ্বোধন করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।

এই নিয়েই ভারতের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করে নেপাল। তাঁদের দাবি অনধিকার প্রবেশ ঘটিয়েছে ভারত। নেপালের দাবি, ওই সড়কের কিছু অংশ ভারত নিজের বলেছে। কাঠমাণ্ডুর দাবি, ১৮১৬ সালে ইঙ্গ-নেপাল যুদ্ধের পর সুগৌলি চুক্তি অনুসারে লিম্পিয়াধুরা, কালাপানি এবং লিপুলেখ কোনওভাবেই ভারতের নয়। এর পরেই বিতর্ক শুরু।

তবে এই বিতর্ককে অন্য চোখে দেখে ভারতীয় সেনা। সেনাপ্রধান এমএম নারাভানের মতে নেপালের এই আস্ফালনের পিছনে রয়েছে প্রত্যক্ষভাবে চিনের মদত। কাঠমান্ডু ও নয়াদিল্লির মধ্যে সুসম্পর্কে চিড় ধরাতে চায় বেজিং। সেই পথেই হেঁটে বেজিং চাইছে কোনও একটা ইস্যুকে সামনে এনে ভারতের বিরুদ্ধে নেপালকে উস্কে দিতে।

ভারতের সেনাপ্রধান মনোজ নারাভানে মন্তব্য করেছিলেন যে ওই লিংক রোডের ব্যাপারে নেপাল সরকারের আপত্তি এসেছে ‘অন্য কারো নির্দেশে’। যখন রাজনাথ সিং ওই সড়কের উদ্বোধন করেন, তখন নেপাল কাঠমান্ডুতে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে তলব করে তাদের আপত্তির বিষয়টি উল্লেখ করে একটি নোটও দেয়। ভারত আগেই স্পষ্ট জানিয়েছে যে নিজেদের ভূখণ্ডেই এই রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।