কাঠমাণ্ডু: রবিবার একাধিক বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে নেপাল৷ তারপরেই কড়া সতর্কতা জারি করা হল নেপাল জুড়ে৷ সোমবার দেশের বিভিন্ন এলাকায় টহল দেয় নেপাল সেনার বম স্কোয়াড৷ তবে সোমবার বিকেলে কাঠমাণ্ডুর নিউ বুসপার্ক এলাকা থেকে একটি বোমা নিষ্ক্রিয় করে স্কোয়াড৷ বোমা মেলে জাতীয় সড়কের ধার থেকেও৷ পোখারা, তানাহুন, সিন্ধুলি মোরাং, বারদিবাস, মাখওয়ানপুর এলাকাতেও তল্লাশি চলে৷ পাঁচটি গাড়ি থেকে বোমা উদ্ধার হয় এদিন৷

একাধিক বিস্ফোরণে আতংক ছড়িয়ে পড়ে এলাকা জুড়ে৷ সোমবার উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে নেপালের রাস্তায়৷ বিভিন্ন জায়গায় বোমা পোঁতা রয়েছে বলে গুজব ছড়িয়ে পড়ে৷

আরও পড়ুন : জয়সূর্যর মৃত্যুর খবরে উত্তাল সোশ্যাল মিডিয়া, গুজব ওড়ালেন ক্রিকেটার স্বয়ং

ফলে রাস্তাঘাটে যাত্রীর সংখ্যা ছিল নগণ্য৷ সোমবার সারাদিনই বন্ধ করে রাখা হয় স্কুল কলেজ, দোকান পাট৷ স্বাভাবিক জীবন যাপন ব্যহত হয় এদিন৷ নেপাল কমিউনিস্ট পার্টি নামে এক সংগঠন বনধ পালন করে৷

এই বিস্ফোরণের দায় কোনও জঙ্গিগোষ্ঠীই এখনও স্বীকার করেনি৷ তবে পুলিশের দাবি কোনও বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী এই হামলার পিছনে রয়েছে৷ ইতিমধ্যেই এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত সন্দেহে ১২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ নেপাল পুলিশের মুখপাত্র বিশ্ব রাজ পোখারেল জানান, যেখানে বিস্ফোরণ হয়েছে, সেখান থেকে বেশ কিছু লিফলেট উদ্ধার হয়েছে৷

আরও পড়ুন : শোচনীয় হারের পর বিরোধী নেতার পদ থেকে তেজস্বীর ইস্তফার দাবি

চলতি বছরের মার্চ মাসেই এই সংগঠনকে নিষিদ্ধ করেছে নেপাল প্রশাসন৷ তারপরে শুরু হয় পুলিশি ধরপাকড়৷ মনে করা হচ্ছে সেই বদলা নিতেই রবিবারের বিস্ফোরণ৷ সংগঠনের সদস্যদের ছাড়াবার দাবি সোমবার বনধ ডাকে এই সংগঠন৷ পুলিশ আধিকারিক শ্যামলাল গাওয়ালির নেতৃত্বে তদন্ত চলছে বলে খবর৷

রবিবার প্রথম বিস্ফোরণটি হয় উত্তর কাঠমাণ্ডুতে৷ সেখানেই মৃত্যু হয় দুজনের৷ আহত হন পাঁচজন৷ শহরের মধ্যভাগে দ্বিতীয় বিস্ফোরণ ঘটে৷ সেখানেও একজন মারা যান৷ গোটা এলাকা ঘিরে ফেলে পুলিশ৷ আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ তৃতীয় বিস্ফোরণটি ঘটে বিস্ফোরক সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময়৷ সেখানে আহত হন দুজন৷