নয়াদিল্লি: স্বেচ্ছাবসরই একমাত্র পথ, নচেৎ ওয়েস্ট ইন্ডিজগামী বিমানে ওঠার কোনও সম্ভাবনা নেই মহেন্দ্র সিং ধোনির। বিশ্বজয়ী অধিনায়কের ভবিষ্যত ঘিরে যখন কাজ করছে এমনই সব পারমুটেশন, ঠিক তেমন সময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ধোনির ভবিষ্যৎ নিয়ে নিজের মতামত ব্যক্ত করলেন গৌতম গম্ভীর।

আবেগের কোনও জায়গা নেই, বরং মহেন্দ্র সিং ধোনির ভবিষ্যত নিয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের বিষয়ে বাস্তবিক হওয়ার পরামর্শ দিলেন প্রাক্তন ক্রিকেটার তথা বর্তমান বিজেপি সাংসদ গম্ভীর।

কারণ হিসেবে গম্ভীর জানান, ধোনি যখন দলের অধিনায়ক পদে আসীন ছিলেন তখন সবসময় ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ও তরুণ ক্রিকেটারদের বেশি করে সুযোগ দেওয়ার বিষয়ে ভাবতেন তিনি। সদ্য সমাপ্ত বিশ্বকাপ সেমিতে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচটি খেলে ফেলেছেন বছর আটত্রিশের মহেন্দ্র সিং ধোনি। এরপর আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে ধোনির ভবিষ্যত নিয়ে যখন জল্পনা তুঙ্গে, ঠিক সেইসময় গম্ভীরের এই মন্তব্য যে ঘটনায় আলাদা মাত্রা যোগ করবে, তা বলাই বাহুল্য।

আরও পড়ুন: নেটে ফিরে যুবরাজের ‘বোটলক্যাপ চ্যালেঞ্জ’ নিলেন গব্বর

উল্লেখ্য, যুক্তরাজ্যের মাটিতে ২০১৯ বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে স্ট্রাইক রেটের কারণে বরাবরই শিরোনামে থেকেছেন মাহি। টুর্নামেন্টে ৮৭.৭৮ স্ট্রাইক রেটে মাহির ব্যাট থেকে ২৭৩ রান এলেও স্কোরবোর্ড সচল রাখার প্রশ্নে বারংবার প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে প্রাক্তন বিশ্বজয়ী অধিনায়ককে। যা মাহির অবসর জল্পনাকে আরও তরান্বিত করেছে নিশ্চিতভাবেই।

আরও পড়ুন: পিছিয়ে গেল ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের দলঘোষণা

এমন সময় এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে গম্ভীর বলেন, ‘ভবিষ্যৎ নিয়ে দূরদৃষ্টিসম্পন্ন হওয়া ভীষণই আবশ্যক। ধোনি যখন অধিনায়ক ছিলেন, সবসময় ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা গ্রহণ করতেন। আমার মনে আছে অস্ট্রেলিয়া সিরিজে ধোনি একবার আমায় বলেছিল, মাঠের আয়তন যেহেতু বড় তাই সিবি সিরিজে সচিন-সেওয়াগ একসঙ্গে সফল হতে পারবে না। তাঁর মনে হয়েছিল পরবর্তী বিশ্বকাপের জন্য তরুণ কিছু প্রতিভা দরকার। আবেগের পরিবর্তে বাস্তবিক হয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করাটা ভীষণ জরুরি।’

পাশাপাশি ২০২৩ বিশ্বকাপে উইকেটের পিছনে ভারতীয় দলে সুযোগের অপেক্ষায় একাধিক তরুণ প্রতিভা, মনে করেন গম্ভীর। ২০১১ বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম কান্ডারি গম্ভীরের কথায়, ২০২৩ ঘরের মাঠে বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে শক্তিশালী দল গড়ার দিকে ম্যানেজমেন্টের নজর দেওয়া উচিৎ। ঋষভ পন্তের পাশাপাশি ইশান কিষান কিংবা সঞ্জু স্যামসনের মত প্রতিভাদের পরবর্তী বিশ্বকাপের জন্য তৈরি করা উচিৎ বলে মনে করেন বিজেপির নব-নির্বাচিত সাংসদ।