নয়াদিল্লি: ফ্রি অ্যাপসের চক্করে চুরি হতে পারে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য৷ এমনই জানাচ্ছে সংবাদ মাধ্যমের রির্পোট৷ অনেকেই প্লে-স্টোর থেকে ডাউনলোড করেন ফ্রি অ্যাপস৷ আর, এই ধরণের অ্যাপগুলির ৯০ শতাংশই গুগলের সঙ্গে শেয়ার করে থাকে ইউজারদের তথ্য৷ যেটির জন্য অবশ্য নেওয়া হয় না ইউজারদের সম্মতি৷ তথ্য জানাচ্ছে, বেশিরভাগ সময়ই শিশুদের টার্গেট করে অ্যাপটি৷ যদিও, বিষয়টিকে সম্পূর্ণভাবে অস্বীকার করেছে গুগল৷

যদি কোনও অ্যাপের মাধ্যমে হিংসাত্মাক ম্যাসেজ ছড়িয়ে পড়ে৷ তবে, তার বিরুদ্ধে যথোপোযুক্ত ব্যবস্থা নেবে গুগল৷ রির্পোটের তথ্য জানাচ্ছে, তথ্য শেয়ারিং কান্ডের সঙ্গে শুধুমাত্র গুগলই জড়িত নয়৷ ৪৩ শতাংশের মত অ্যাপ ফেসবুকের সঙ্গে তথ্য শেয়ার করে থাকে৷ এছাড়াও, বেশ কিছু অ্যাপস রয়েছে যেগুলি ট্যুইটার, আমাজন, মাইক্রোসফটের মত নামিদামি সংস্থাগুলির সঙ্গে ইউজারদের গোপন তথ্য শেয়ার করে থাকে৷

তবে, তথ্য চুরি ও শেয়ার করার ঘটনা প্রথম নয়৷ এর আগেও একইভাবে তথ্য চুরি হয়েছে৷ শুধু তাই নয়, যেগুলিকে বিজ্ঞাপনের জন্য ব্যবহার করা হয়েছে বলেও দাবি৷ বেশ কিছু দিন যাবদই চলছে এই তথ্য চুরির পর্বটি৷ ইদানিং, সংবাদ মাধ্যমের দৌলতে সামনে আসছে বিষয়টি৷ আর, সেখান থেকেই নিজের তথ্য কতটা সুরক্ষিত সে বিষয়টি নিয়ে সরব হয়েছেন ইউজাররা৷ এমনকি আরও বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত গ্রাহকদের তথ্য সুরক্ষার বিষয়টির উপর৷ এমনই দাবি ইউজারদের একাংশের৷

অনেকেই ফ্রি অ্যাপ ডাউনলোড করে থাকেন৷ কিন্তু, মাঝেমধ্যেই সেটি হতে পারে ক্ষতিকারক৷ গোপন তথ্য আপনার অজান্তেই পৌঁছে যেতে পারে থার্ড-পার্টি অ্যাপগুলির হাতে৷ যেটি মোটেও যুক্তিযুক্ত নয়৷ পরবর্তীক্ষেত্রে এটি থেকে দেখা দিতে পারে সমস্যাও৷ তাই, প্লে-স্টোর থেকে ফ্রী অ্যাপ ডাউনলোড করার আগে সর্তক থাকুন৷ কারণ, আসল নকলের মধ্যে রয়েছে সুক্ষ ব্যবধান৷ আর, অনেক সময়ই সাধারণের চোখকে ফাঁকি দেয় সেই ব্যাবধান৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.