কটক: ভাইজ্যাগে দ্বিতীয় ওয়ান ডে জিতে তিন ম্যাচের সিরিজে সমতা ফিরিয়েছে বিরাটবাহিনী৷ ফলে রবিবার কটকে তৃতীয় তথা শেষ ম্যাচে দুই দলের সামনেই রয়েছে সিরিজ জয়ের হাতছানি৷ কোহলি অ্যান্ড কোং শেষ ম্যাচ জিতলে ইতিহাস গড়বে ভারত৷ ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে টানা ১০টি ওয়ান ডে সিরিজ জিতবে ভারত৷

তিরুঅন্তপুরমে প্রথম ম্যাচে লজ্জাজনক হারের পর বিশাখাপত্তনমে দ্বিতীয় ম্যাচে ক্যারিবিয়ানদের ১০৭ রানে হারিয়ে সিরিজে সমতা ফেরায় বিরাটবাহিনী৷ দুই ওপেনারে রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুলের জোড়া শতরানে ক্যারিবিয়ানদের সামনে ৩৮৮ রানের টার্গেট রেখেছিল ভারত৷ কিন্তু রান তাড়া করতে নেমে ২৮০ রানে অল-আউট হয়ে যায়৷

কটকে লড়াইয়ে নামার আগে অবশ্য ভারতীয় পেস আক্রমণে বড়সড় ধাক্কা৷ ভুবনেশ্বর কুমার ছাড়াও চোটের জন্য এই ম্যাচে নেই ফর্মে থাকা দীপক চাহার৷ অর্থাৎ বিরাটের পেস আক্রমণে নেই দুই সেরা বেলার৷ চাহারের পরিবর্তে দলের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন নভদীপ সাইনি আর ভুবির পরিবর্তে নেওয়া হয়েছে শার্দুল ঠাকুরকে৷

ভারতীয় দলের ব্যাটিংয়ে অবশ্য কোনও পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাবে না সিরিজ নির্ণায়ক ম্যাচে৷ কারণ স্বপ্নের ফর্মে রয়েছেন দুই ওপেনার রোহিত ও রাহুল৷ ভাইজ্যাগে দ্বিতীয় ম্যাচে ১৩৮ বলে ১৫৯ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন ‘হিটম্যান’৷ চলতি বছরে এই নিয়ে মোট ৭টি ওয়ান ডে সেঞ্চুরি করেন রোহিত৷ কেবল মাত্র সচিন তেন্ডুলকর একই ক্যালেন্ডার-বর্ষে এত থেকে বেশি ওয়ান ডে সেঞ্চুরি করেছিলেন৷ ১৯৯৮ সালে মাস্টার ব্লাস্টার ৯টি ওয়ান ডে শতরান করেছিলেন৷ ২০০০ সালে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও ২০১৬ সালে ডেভিড ওয়ার্নার ওয়ান ডে ক্রিকেটে ৭টি করে সেঞ্চুরি করেন৷ সেদিক থেকে দুই তারকাকে ছুঁয়ে ফেলেন শর্মা৷

রোহিতের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সেঞ্চুরি করে রাহুলও৷ ১০৪ বলে ১০২ রান করেন কর্নাটকের এই ডানহাতি৷ ওপেনিং জুটিতে ২২৭ রান তুলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে শুরুতেই ব্যাকফুটে ঠেলে দিয়েছিলেন রোহিত ও রাহুল৷ সেখান থেকে আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ৷ রোহিত ও রাহুলের পর শ্রেয়স আইয়ার হাফ-সেঞ্চুরি ও ঋষভ পন্ত ১৬ বলে ৩৯ রান করেন ভারতকে বড় রানে পৌঁছে দিয়েছিলেন৷

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও