মুম্বই: এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপিকে কড়া ভাষায় আক্রমণ শানালেন ভারতীয় রাজনীতির ‘চাণক্য’ এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার। কেন্দ্র ও মোদীকে বিঁধে পাওয়ারের তোপ, ‘তুমুল জনপ্রিয়তা থাকলেও হারতে হয়েছে ইন্দিরা গান্ধী ও অটলবিহারী বাজপেয়ীকেও। প্রধানমন্ত্রী ও বিজেপির সেই ইতিহাস মনে রাখা উচিত।’

দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্রেই করোনার সর্বাধিক সংক্রমণ। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী শনিবার বিকেল পর্যন্ত মহারাষ্ট্রে নোভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২ লক্ষ ৩৮ হাজার ৪৬১। মহারাষ্ট্রে করোনায় মৃত বেড়ে ৯ হাজার ৮৯৩। এই পরিস্থিতিতে মহারাষ্ট্রের শিবসেনা-এনসিপি-কংগ্রেসের জোটের সরকারকে বিঁধে একনাগাড়ে তোপ দেগে চলেছে রাজ্য বিজেপি।

এবার বিজেপির সেই খোঁচারই মোক্ষ জবাব দিলেন বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ শরদ পাওয়ার। শিবসেনার মুখপত্র ‘সামনা’-য় সেনা সাংসদ সঞ্জয় রাউতকে দেওয়া একটি সাক্ষাকারে পাওয়ার বিজেপি ও প্রধানমন্ত্রীকে একহাত নিয়ে বলেন, ‘তুমুল জনপ্রিয়তা থাকলেও হারতে হয়েছে ইন্দিরা গান্ধী ও অটলবিহারী বাজপেয়ীকেও। প্রধানমন্ত্রী ও বিজেপির সেই ইতিহাস মনে রাখা উচিত।’

সেই সাক্ষাৎকারে মহারাষ্ট্র সরকার নিয়েও মুখ খুলেছেন পাওয়ার। জোটের দলগুলির মধ্যে আদর্শগত ফারাকের কথা স্বীকার করে নিয়েই পাওয়ার আরও বলেন, ‘সরকারে থাকা তিন দলের মধ্যে মতাদর্শগত ফারাক রয়েছে। একথা সত্যি। তবে রাজ্যের উন্নয়নের প্রশ্নে সবাই একজোট।’ বিজেপিকে দুষে এনসিপি সুপ্রিমোর সাবধানবাণী, ‘কখনও অহঙ্কার দেখানো উচিত নয়। মানুষ এই ঔদ্ধত্য মেনে নেবেন না। ভোটবাক্সে তার জবাব মিলবে।’

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ