মুম্বই: সোমবার হাইকোর্টে নারকোটিকস কন্ট্রোল ব্যুরো রিয়া চক্রবর্তী জামিনের আবেদনের বিরুদ্ধে একটি এফিডেভিট দায়ের করেছে। এনসিবি জোনাল ডিরেক্টর সমীর ওয়াংখেড়ে এই এফিডেভিট-এ দাবি করেছেন, রিয়া চক্রবর্তী মাদক পাচারের জন্য যে অর্থ ব্যয় করেছেন তাঁর বহু প্রমাণ রয়েছে।

তিনি জানিয়েছেন, হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট, মোবাইল কল রেকর্ড, ল্যাপটপ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী বোঝা যাচ্ছে মাদক কেনার জন্য তিনি অর্থ ব্যয় করেছেন। আর তাই বহু প্রমাণ রয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে শুধু ড্রাগ ওয়ার্ল্ডের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ নয়, তিনি মাদক পাচার কাণ্ডে অর্থও ব্যয় করেছেন।

সুশান্ত সিং রাজপুত মাদক নিতেন এই তথ্য এনসিবির হাতে এসেছে। এবং সেই মর্মে তাদের দাবি যে রিয়া সেই বিষয়টিকে প্রশ্রয় দিয়েছেন এবং গোপন করার চেষ্টা করেছেন। এই বিষয়টিও আইনত অপরাধ বলে জানিয়েছে এনসিবি।

হাইকোর্টের পেশ করা এফিডেভিট-এ তদন্তকারী সংস্থার পক্ষ থেকে এও বলা হয়েছে, ড্রাগ সিন্ডিকেটের সক্রিয় সদস্য রিয়া চক্রবর্তী। এবং হাই সোসাইটির ড্রাগ পাচারকারী এবং ব্যক্তিত্বদের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ রয়েছে। মাদক পাচারের সঙ্গে তার সরাসরি যোগাযোগ ছিল। ক্রেডিট কার্ড, ডেবিট কার্ড এবং ক্যাশ টাকার মাধ্যমে মাদক কাণ্ডে লেনদেন করেছেন রিয়া।

আজ মঙ্গলবার রিয়া চক্রবর্তী ও সৌভিক চক্রবর্তী জামিনের আবেদনের শুনানি শুরু হয়ে গিয়েছে বম্বে হাইকোর্টে। প্রসঙ্গত সুশান্ত সিং রাজপুত যে মাদক নিতেন সেই সেই তথ্য দিয়েছেন তার সহ অভিনেত্রী সারা আলি খান এবং শ্রদ্ধা কাপুরও।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।