মুম্বই: খবরের শিরোনামে রোজ উঠে আসছেন অভিনেতা নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি। সম্প্রতি অভিনেতাকে তাঁর স্ত্রী আলিয়া সিদ্দিকি ডিভোর্সের আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন। আলিয়ার অভিযোগ, নওয়াজ তাঁর উপরে মানসিক অত্যাচার করতেন। ১০ বছরের বৈবাহিক সম্পর্কে সমস্যা ছিল অনেক।

নওয়াদ এক সময়ে অভিনেত্রী নীহারিকা সিং-এর সঙ্গেও সম্পর্কে গিয়েছিলেন। নীহারিকার থেকে বিয়ের কথা লুকিয়েছিলেন সেই সময়ে। নিজের বায়োগ্রাফি অ্যান অর্ডিনারি লাইফ-এ নীহারিকার সঙ্গে সম্পর্কের কথা লিখেছিলেন। এই বইতেই তিনি আরও একটি ঘটনার কথা লিথেছিলেন যেটি বিতর্ক তৈরি করেছিল। নওয়াজ জানিয়েছিলেন নিউইয়র্কে এক ক্যাফের ওয়েট্রেসের সঙ্গে তিনি একটি রাত্রি যাপন করেছিলেন।

নওয়াজ বইতে লিখেছিলেন, “২০০৬ সাল থেকে ২০১০ আমার জীবন অসাধারণ কেটেছিল। ইন্ডাস্ট্রি তখন আমায় চিনতে শুরু করেছে। কিন্তু অদ্ভুত ভাবে পশ্চিমের দেশ কিন্তু আমার ব্যাপারে বেশ দয়ালু ছিল। সে ভালোবাসা ও কাজ দুই ক্ষেত্রেই। নিউইয়র্কের সোহোতে একটি ক্যাফেতে গিয়েছিলাম এক বন্ধুর সঙ্গে। অপূর্ব সুন্দরী ওয়েট্রেস আমার দিকে তাকিয়ে ছিলেন। তিনি আমায় জিজ্ঞাসা করলেন, ‘তুমি কি একজন অভিনেতা?’ আমি বললাম, ‘হ্যাঁ। আপনি আমার কোন ছবি দেখেছেন?’ তিনি বললেন, ‘লাঞ্চবক্স।’ আমরা কথা বলা শুরু করলাম। তারপর বললাম, নিউইয়র্কে যা হচ্ছে তা যেন নিউইয়র্কেই থেকে যায়।”

নওয়াজের স্ত্রী তাঁকে আইনি নোটিশ পাঠানোর পর থেকেই এই পুরনো ঘটনাগুলি মাথা চাড়া দিয়ে উঠছে। নওয়াজের স্ত্রী আলিয়ার অভিযোগ, অভিনেতার দাদা তাঁকে মারধরও করতো। একসময় মুম্বইয়ের বাড়িতে আলিয়া থাকতেন নওয়াজ এবং তার মা দাদা ও বৌদির সঙ্গে। আলিয়া জানিয়েছেন নওয়াজ তাঁর গায়ে হাত না তুললেও নওয়াজের দাদা প্রায়ই তাঁকে মারধর করতেন।

আলিয়া জানিয়েছেন,নওয়াজের পরিবারে এটা আগেও হয়েছে। বাড়ির বউদের উপর তারা নাকি এভাবেই অত্যাচার করে। যার জন্য তাদের পরিবারের উপর রয়েছে সাতটি মামলার দায়। আলিয়ার কথায়, নওয়াজউদ্দিন অভিনেতা হিসেবে বড় মাপের হলেও, মানুষ হিসেবে তা কেন হতে পারেননি! নিজের সন্তানদের সঙ্গে শেষ কবে দেখা করেছেন তাও হয়তো তার মনে নেই। আর তাই সন্তানদেরকে নিজের কাছেই রাখতে চান আলিয়া। আলিয়া বলছেন, “ওদের আমি বড় করেছি। তাই ওরা আমার কাছেই থাকবে।”

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প