মুম্বই: নওয়াজুদ্দিন সিদ্দিকিকে ডিভোর্স চেয়ে আইনি চিঠি পাঠিয়েছেন তাঁর স্ত্রী আলিয়া সিদ্দিকি। আলিয়ার অভিযোগ তাদের বৈবাহিক জীবন মোটেই ভালো ছিল না। তার উপর মানসিক ভাবে অত্যাচার করতেন নওয়াজ। এমনকি পরিবারের বিরুদ্ধে মারধর করার অভিযোগ এনেছেন আলিয়া।

এখানেই শেষ নয়। এবার নওয়াজের দাদার বিরুদ্ধে আরেকটি অভিযোগ আনলেন আলিয়া সিদ্দিকি। আলিয়া জানিয়েছেন তাঁর ও নওয়াজের সম্পর্কের মধ্যে বড় সমস্যা ছিল তাঁর দাদা। তিনি নাকি আলিয়ার জীবনে রীতিমত গোয়েন্দাগিরি করতেন। আলিয়া কোথায় যাচ্ছেন, কোথা থেকে আসছেন, কী করছেন সমস্ত কিছুর ওপর নজরদারি চালাতেন নওয়াজের দাদা। এমনই অভিযোগ এনেছেন অভিনেতার স্ত্রী।

আলিয়া আরও জানিয়েছেন, ১০ বছর বৈবাহিক জীবন হলেও, বিয়ের পরেই শুরু হয়েছিল তাদের মধ্যে সমস্যা। বিগত ৪-৫ বছর ধরে তাঁরা আলাদাই রয়েছেন। আলিয়া জানাচ্ছেন, বিয়ের পরেই তিনি বুঝে গিয়েছিলেন নওয়াজ ও তাঁর দাদা কেউ মহিলাদের সম্মান করে কথা বলতে জানেন না। কথায় কথায় অপমানিত হতে হতো তাঁকে। নওয়াজ খুব চিৎকার চেঁচামেচি করতেন। কিন্তু কখনো গায়ে হাত তোলেন নি। তবে নওয়াজের দাদা তাঁকে মারধর করেছেন অভিযোগ আলিয়ার।

আলিয়া জানিয়েছেন, নওয়াজের পরিবারে এটা আগেও হয়েছে। বাড়ির বউদের উপর তারা নাকি এভাবেই অত্যাচার করে। যার জন্য তাদের পরিবারের উপর রয়েছে সাতটি মামলার দায়। আলিয়ার কথায়, নওয়াজউদ্দিন অভিনেতা হিসেবে বড় মাপের হলেও, মানুষ হিসেবে তা কেন হতে পারেননি! নিজের সন্তানদের সঙ্গে শেষ কবে দেখা করেছেন তাও হয়তো তার মনে নেই। আর তাই সন্তানদেরকে নিজের কাছেই রাখতে চান আলিয়া। আলিয়া বলছেন, “ওদের আমি বড় করেছি। তাই ওরা আমার কাছেই থাকবে।” উল্লেখ্য, ইমেইল ও হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে নওয়াজকে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে। কিন্তু তিনি এখন পর্যন্ত কোনো জবাব দেননি। এই মুহূর্তে উত্তরপ্রদেশের মুজাফফরপুর এর বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনএ রয়েছেন নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকি।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব