আবু ধাবি: পাকিস্তানে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ এবং তাঁর মেয়ে শুক্করবার সকালেই লন্ডন থেকে পাকিস্তানের উদ্দেশ্য রওনা দিয়েছেন৷ পাক সংবাদ মাধ্যম ডন-এর খবর অনুযায়ী, নওয়াজ এবং মারিয়ম লাহোরের আল্লামা ইকবাল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে সন্ধ্যে ৬.১৫মিনিট নাগাদ পৌঁছবেন৷ দুজনেই এতিহাদ এয়ারওয়েজের EY243 ফ্লাইটে আবু ধাবি এয়ারপোর্টে আসেন৷

লন্ডন থেকে বেরনোর আগে মারিয়ম ট্যুইট করেন৷ একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে তাঁরা কুলসুম নওয়াজ(নওয়াজের স্ত্রী)-এর সঙ্গে রয়েছেন, যিনি অসুস্থতার কারণে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভর্তি৷ নওয়াজ এবং মারিয়ম লাহোর এয়ারপোর্টে পৌঁছনোর পরই তাদের গ্রেফতার করা হবে এবং হেলিকপ্টারে করে ইসলামাবাদ নিয়ে যাওয়া হবে৷ সূত্র অনুযায়ী, তাদের আদিয়ালা জেলে রাখা হতে পারে৷

প্রসঙ্গত, দুর্নীতি মামলায় গত শুক্রবার নওয়াজ শরিফকে ১০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। নওয়াজের সঙ্গে তার মেয়ে মরিয়মকেও সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর শ্যালক ক্যাপ্টেন অবসরপ্রাপ্ত সফদারকে এক বছরের কারদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়া নওয়াজকে ৮০ লাখ এবং মরিয়মকে ২০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড জরিমানা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷ আপাতত লন্ডনেই রয়েছেন নওয়াজ ও মরিয়ম৷ স্ত্রী বেগম কুলসুম নওয়াজের চিকিৎসার জন্য গত ১৪ জুন সপরিবারে লন্ডন যান নওয়াজ শরিফ। অ্যাভেনফিল্ড এলাকার একটি বাড়িতে বসেই মেয়ে মরিয়ম আর প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী ইসহাক ধরের সঙ্গে বসে মামলার রায় ঘোষণা শোনেন তিনি।

পাকিস্তানে পা রাখার পর বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে থাকবেন নওয়াজ শরিফ ও মারিয়ম৷ লাহোরে নওয়াজ-মরিয়মের সমর্থনে থাকবে PML-N-নেতা, কর্মীরা৷ এর আগেই, লন্ডন থেকে নওয়াজ বার্তা দিয়েছিলেন-‘জেলকে আমি ভয় পাই না৷ আমি স্বাধীন পাকিস্তানের নাগরিক৷ আমার ভাগ্য কয়েকজন সেনা আধিকারিক ঠিক করবে না৷’ আর এবার ফ্লাইটে রেকর্ড করা এক ভিডিও মেসেজে তিনি জানান, ‘দেশে কঠিন সময় চলছে৷ আমার পক্ষে যতটা সম্ভব ছিল আমি করেছি৷ আমার দশ বছরের শাস্তি হয়েছে এবং আমাকে সরাসরি জেলে নিয়ে যাওয়া হবে৷ কিন্তু আমি চাই পাক নাগরিকরা এটা জানুক যে, আমি এসব তাদের জন্যই করছি৷’