ইসলামাবাদ: নওয়াজ-মরিয়মকে exit control list (ECL) তালিকায় রাখল পাকিস্তান৷ যেখানে,দেশে ফেরার পর আর দেশের বাইরে যেতে পারবেন না তাঁরা৷ দেশে ফিরে গ্রেফতারের মুখে পড়বেন বাবা-মেয়ে৷ কোনওরকম আইনি ফাক না রেখে ২ জনের বিদেশ যাত্রায় নিষেধাজ্ঞা জারি করল পাক প্রশাসন৷

আগামী শুক্রবার পাকিস্তানে ফিরবেন নওয়াজ ও কন্যা মরিয়ম৷ ফেরার পরই যাতে বিদেশে না উড়তে পারেন সেই ব্যবস্থাই করে ফেলল পাকিস্তান৷ দুর্নীতির অভিযোগে ১০ বছরের জেল হয়েছে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর। দেশে ফিরেই জেলে যেতে হবে তাকে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গেই আসবেন মরিয়ামও। পাকিস্তানের মাটিতে পা দিলেই তাদের দুজনকেই গ্রেফতার করা হবে বলে জানিয়েছে National Accountability Bureau (NAB) । ১০ দিনের মধ্যে দোষী দুজনকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছ ইসলামাবাদ আদালত। সেই মতই শুক্রবার আত্মসমর্পন করার কথা বাবা-মেয়ের৷

দুর্নীতি মামলায় গত শুক্রবার নওয়াজ শরিফকে ১০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। নওয়াজের সঙ্গে তার মেয়ে মরিয়মকেও সাত বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর শ্যালক ক্যাপ্টেন অবসরপ্রাপ্ত সফদারকে এক বছরের কারদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়া নওয়াজকে ৮০ লাখ এবং মরিয়মকে ২০ লাখ ব্রিটিশ পাউন্ড জরিমানা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷ আপাতত লন্ডনেই রয়েছেন নওয়াজ ও মরিয়ম৷ স্ত্রী বেগম কুলসুম নওয়াজের চিকিৎসার জন্য গত ১৪ জুন সপরিবারে লন্ডন যান নওয়াজ শরিফ। অ্যাভেনফিল্ড এলাকার একটি বাড়িতে বসেই মেয়ে মরিয়ম আর প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী ইসহাক ধরের সঙ্গে বসে মামলার রায় ঘোষণা শোনেন তিনি।

পাকিস্তানে পা রাখার পর বিশেষ নিরাত্তা ব্যবস্থায় থাকবেন নওয়াজ শরিফ ও মরিয়ম৷ লাহোর থেকে সেনা হেলিকপ্টারে ২ জনকেই ইসলামাবাদ আনা হবে৷ লাহোরে নওয়াজ-মরিয়মের সমর্থনে থাকবে PML-N-নেতা, কর্মীরা৷ অন্যদিকে, লন্ডন থেকে নওয়াজের বার্তা-‘জেলকে আমি ভয় পাই না৷ আমি স্বাধীন পাকিস্তানের নাগরিক৷ আমার ভাগ্য কয়েকজন সেনা আধিকারিক ঠিক করবে না৷’