নয়াদিল্লি: লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা অধীররঞ্জন চৌধুরী প্রশ্ন তুললেন৷ কংগ্রেসের হয়ে সওয়াল করলেন৷ জম্মু কাশ্মীর ইস্যুতে হাওয়া গরম করলেন সংসদে৷ কিন্তু লাভের লাভ সেভাবে হল না৷ বরং তাঁর বিরোধী বক্তব্যে বেশ লজ্জিত কংগ্রেস৷

অধীর রঞ্জন চৌধুরী এদিন বলেন কাশ্মীর কখনই ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়৷ দুই দেশ আলোচনার মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান করবে, তেমনই রাস্তায় হাঁটা উচিত ছিল কেন্দ্রের৷ এদিন তিনি আরও বলেন ১৯৪৮ সাল থেকে কাশ্মীর ইস্যু পর্যবেক্ষণ করে আসছে রাষ্ট্রসংঘ৷ তাহলে কী করে এই বিষয়টি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় হয়? অধীরের এই বক্তব্যের পরেই বেশ অস্বস্তিতে পড়েন লোকসভায় উপস্থিত কংগ্রেস নেতারা৷

আরও পড়ুন : ‘আর্টিকল ৩৭০’ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দিলেন মমতা

অধীর এদিন বলতে উঠে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকরের প্রসঙ্গ টেনে আনেন৷ তিনি বলেন ভারতের বিদেশমন্ত্রক জানিয়ে ছিল কাশ্মীর সমস্যা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করবে ভারত৷ পাকিস্তানের সঙ্গে সেই আলোচনার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের মত কোনও তৃতীয় ব্যক্তির মধ্যস্ততাকারী হওয়া মেনে নেওয়া হবে না৷ কংগ্রেসের অভিযোগ পাক অধিকৃত কাশ্মীর নিয়ে মাথাব্যথা নেই অমিত শাহদের৷ রাতারাতি কোনও এলাকাকে কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল বানানো যায় না৷ নিয়ম বহির্ভূতভাবে কাজ করেছে বিজেপি সরকার৷

তবে কংগ্রেসের হয়ে এই বক্তব্য পেশ করায় বেশ কিছুটা চমকে যায় সংসদ৷ ক্যামেরায় ধরা পড়ে ইউপিএ চেয়ারপার্সন সোনিয়া গান্ধী চমকে রাহুল গান্ধীর দিকে তাকাচ্ছেন৷ অধীরের বক্তব্যকে ঠিক বিশ্বাস করতে পারছিলেন না তাঁরা, এমনই শারীরিক ভাষা ফুটে ওঠে ক্যামেরায়৷ রাহুল গান্ধীকেও বেশ কিছুটা হতবাক লেগেছে, যদিও কোনও প্রতিক্রিয়া দিতে দেখা যায়নি তাঁকে৷

আরও পড়ুন : ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের কথা জানতেন না মোদী সরকারের আধিকারিকরাও

পরে অবশ্য বিষয়টি সামলে নেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী৷ তিনি বলেন তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে৷ তাঁকে ভুল বোঝা হয়েছে৷ সংসদ থেকে বেরিয়ে সংবাদসংস্থা এএনআইয়ের মুখোমুখি হন অধীর৷ তাঁর সাফাই ছিল, জম্মু কাশ্মীর রাজ্যর দ্বিখণ্ডন করার প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন তিনি৷ আর কোনও বক্তব্য রাখতে চাননি৷ তিনি বলেন কংগ্রেস জানতে চায় পাক অধিকৃত কাশ্মীরের সম্পর্কে ভারত সরকারের কি অবস্থান? কারণ জম্মু কাশ্মীরের স্টেটাস বদলে গিয়েছে৷ এক্ষেত্রে কি ভুল প্রশ্ন করা হয়েছে৷

মঙ্গলবার পেশ করা জম্মু কাশ্মীর পুনর্গঠন বিল (২০১৯)-এ কোথাও পাক অধিকৃত কাশ্মীরের কথা উল্লেখ নেই বলে এদিন দাবি করেছেন অধীর রঞ্জন চৌধুরী৷ এই বিল অসম্পূর্ণ বলে অভিযোগ তাঁর৷ এই নিয়ে তিনি সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে চেয়েছিলেন বলে সাফাই দেন লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা৷