নয়াদিল্লি: হিন্দি ভাষার ক্ষমতা রয়েছে, গোটা দেশকে এক সূত্রে বাঁধার। এমনই মনে করেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তাঁর মতে ভারতকে বিশ্বের দরবারে উপস্থিপাত করার জন্য হিন্দি শ্রেষ্ঠ ভাষা। শনিবার হিন্দি দিবসে হিন্দি ভাষার ক্ষমতা সম্পর্কে বলতে গিয়ে এমনই মন্তব্য করেন তিনি।

এদিন তিনি বলেন, গোটা দেশের প্রতি প্রান্তে হিন্দি ভাষার ব্যবহার রয়েছে। এই একটা ভাষা গোটা দেশকে এক সুতোয় বেঁধে ফেলতে পারে। ফলে দেশের একতা ও সংঘবদ্ধতার জন্য হিন্দি ভাষার প্রয়োজন রয়েছে। এরই সঙ্গে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আবেদন হিন্দিকে প্রাথমিক ভাষা করা হোক, প্রতিটি মানুষের হিন্দি শেখা প্রয়োজন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর মতে ভারত বহু ভাষার দেশ, সেখানে প্রতিটি ভাষা নিজের নিজের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ। তবে হিন্দি ভাষার ক্ষমতা অনস্বীকার্য। সেখানে একতার জোর প্রকাশ পায়। সারা বিশ্বের কাছে ভারতের পরিচিতি বাড়ায় এই হিন্দি ভাষা। যদি কোনও ভাষার জোর থাকে গোটা দেশকে একত্রিত করার, তবে তা হিন্দির মধ্যে রয়েছে। এদিন এই সম্পর্কে ট্যুইটও করেন অমিত শাহ।

আরও একটি ট্যুইটে অমিত শাহ হিন্দি ভাষার ব্যবহার ও প্রচলনের ওপরে জোর বাড়াতে অনুরোধ করেন। তিনি বলেন ভারতীয়দের উচিত হিন্দি শেখা ও হিন্দি ভাষার প্রচন ও ব্যবহার বাড়ানো। তবেই ভারতীয়ত্ব জোরদার হবে। হিন্দি আমাদের মাতৃভাষা, একে গুরুত্ব দিয়ে এগিয়ে আসা উচিত প্রত্যেকের। এই প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে অমিত শাহ মহাত্মা গান্ধী ও সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের উল্লেখ করেন। শাহ বলেন, এঁরা দুজনেই হিন্দি ভাষার ব্যবহার করে দেশকে বেঁধে রাখতে চেয়েছিলেন।

উল্লেখ্য, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে সফরের সময়ে হিন্দি ভাষারই ব্যবহার করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। জি-৭ সম্মেলন চলাকালীন মোদী-ট্রাম্প পার্শ্ব বৈঠকের দিকে সারা পৃথিবীর নজর ছিল। দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয় এড়িয়েও মোদীর ইংরেজী বলার বিষয়টি সারা বিশ্বের মিডিয়ার নজরে ছিল। বিদেশে নরেন্দ্র মোদী খুব প্রয়োজন ছাড়া ইংরেজি বলেন না। দেশেও যে এই ব্যবস্থার অন্যথা হয় তা নয়। মোদীর এই স্টাইল দেশ এবং দেশের বাইরে জনপ্রিয় হয়েছে।

কিছুদিন আগে করবেট পার্কে ডিসকভারি চ্যানেলের জন্য একটি অনুষ্ঠান করতে গিয়ে মোদী ওই অনুষ্ঠানের সঞ্চালক এবং অভিযানকারী বিয়ার গ্রিলের সঙ্গে হিন্দিতেই কথা বলেছিলেন। তা বেশ বুঝেও নিয়েছিলেন গ্রিল।

দক্ষিণ ভারতে বক্তব্য রাখতে গিয়ে অনেকবার ইংরেজি ব্যবহার করেছেন মোদী। কারণ উনি মনে করেছেন তামিল বা অন্যান্য দক্ষিণী জনতা হিন্দি পছন্দ করেন না। কিন্তু, শেষ লোকসভা নির্বাচনের আগে ভুল ভেঙে যায় মোদীর। তিনি তামিলনাড়ুতে গিয়ে হিন্দিতে ভাষণ দিয়েছেন।