ফাইল ছবি

গোরক্ষপুর: দেশ চলে সংবিধানে, ফতোয়াতে নয়৷ শুক্রবার ঠিক এই ভাষাতেই ফতোয়া নিয়ে মৌলবীদের কটাক্ষ করলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ৷ ঘোষণা করা হয়, নভেম্বর মাসের ৩ ও ৪ তারিখ দিল্লিতে ফতোয়া রাজনীতির বিরোধিতা করবেন হিন্দুরা৷ ফতোয়া প্রসঙ্গে তিনি আরও জানান, সংবিধানের মাধ্যমে সব সমস্যার সমাধানসূত্র খুঁজে বের করা সম্ভব৷

শুক্রবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেন, ‘‘ধর্ম সুরক্ষিত থাকলে দেশ সুরক্ষিত থাকে৷’’ পরে তাঁর সংযোজন, সব সমস্যার সমাধানসূত্র বাবা আম্বেদকর রচিত সংবিধানের মাধ্যমে খুঁজে বের করা সম্ভব৷ এদিন তিনি গোরক্ষপুরের একটি মন্দিরে অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসেন৷ সেখানে তিনি জানান, সন্ন্যাসী থেকে রাজনীতিতে আসলে একটা ধারণা জনমানসে কাজ করে৷ আদৌ তিনি জনসেবার কাজের যোগ্য কিনা, রাজনীতিতে সফল হবেন কিনা ইত্যাদি বিষয় আলোচনাতে উঠে আসে৷ কিন্তু এই নিয়ে ভাবতে বসলে গোরক্ষপুরের উন্নয়নে নজর দিতে পারতেন না৷ জানান সন্ন্যাসী থেকে রাজনীতিতে আসা যোগী আদিত্যনাথ৷

তিনি বলেন, ‘‘এখানে (সংবিধানে) কোনও ভেদাভেদ নেই৷ সব ধর্ম, মতবাদকে সমান গুরুত্ব ও সম্মান দেওয়া হয়৷’’ ৪৬ বছর বয়সী এই রাজনীতিবিদ আরও বলেন, দেশ প্রগতির পথে, উন্নয়নের পথে এগিয়ে চলেছে৷ তারপরেই মুসলিমদের ফতোয়া নিয়ে কটাক্ষ করেন যোগী৷ বলেন, দেশ চলে সংবিধানে৷ ফতোয়াতে নয়৷

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ ও বাবরি মসজিদ ধ্বংসে অভিযুক্ত রাম বিলাস বেদান্তি৷ এখানেও তিনি টেনে আনেন রাম মন্দির প্রসঙ্গ৷ জানান, ২০১৫ সালে প্রয়াত বিশ্ব হিন্দু পরিষদ নেতা অশোক সিংহল তাঁকে বলেছিলেন, আর দু’বছর পর রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হবে যোগী আদিত্যনাথ৷ তারপরেই অযোধ্যাতে তৈরি হবে রামমন্দির৷