দেবময় ঘোষ, কলকাতা: লোকসভা নির্বাচনের শেষ দফার আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলায় ১৭টি জনসভা করবে৷ যা একটি রেকর্ড বলেই মনে করছে বিজেপি৷ লোকসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দেশের অন্য কোনও নেতা বাংলায় এই সংখ্যক জনসভা করেছেন বলে মনে করছে না বিজেপি৷ রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরাো মনে করছেন, বাংলা দখল করতে এসে রেকর্ড গড়েছেন মোদী৷

লোকসভা নির্বাচনে শুরু থেকেই বাংলাকে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহ৷ লোকসভা নির্বাচন চলাকালীন বাংলায় ইতিমধ্যেই ১৩টি সভা করে ফেলেছেন নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদী৷ শেষ দফার নির্বাচনের আগে বাকি ৪টি সভা করবেন তিনি৷ রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা লক্ষ করেছেন, মোদী উত্তরপ্রদেশ, পশ্চিমবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, ওড়িশা এবং গুজরাটেকে বেশি গুরুত্ব দিয়েছেন৷ এই পাঁচ রাজ্যই তাকে ক্ষমতায় ফিরিয়ে আসবে মনে করেছে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব৷ সেই কারণে ৫০ শতাংশ প্রচার এই পাঁচ রাজ্যেই করেছেন মোদী৷ কিন্তু বাংলার দিকে তাকিয়ে রীতিমতো অবাক সারা ভারতের রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা৷ অতীতে কোনও প্রধানমন্ত্রী লোকসভা নির্বাচনের জন্য বাংলায় ১৭টি জনসভা করেছেন – এখন কথা খেয়াল করতে পারছেন কেউ৷

রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রী বাংলাকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছেন৷ বাংলায় বেশি এসেছেন৷ জনসভা করেছেন৷ ভবিষ্যেতেও আসবেন৷ তবে শেষ দফা নির্বাচনের আগে মোট ১৭ বার তিনি আসবেন৷’’ অন্যদিকে, বিশিষ্ট সাংবাদিক এবং হাওড়ায় বিজেপি প্রার্থী রন্তিদেব সেনগুপ্তর মতে, ‘‘১৭টি জনসভা লোকসভা পরিপ্রেক্ষিতে অন্যকোনও প্রধানমন্ত্রী বাংলায় করেছেন কিনা জানা নেই৷ নরেন্দ্র মোদী করে দেখাবেন৷ বোঝাই যাচ্ছে উনি বাংলাকে কতটা গুরুত্ব দিয়েছেন৷’’

বিজেপির রাজ্য কমিটির সদস্য দেবাশিস শীলের বক্তব্য, ‘‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে ব্রিগেডে এসেছিলেন নরসিমা রাও৷ অটল বিহারি বাজপেয়ি, এইচ ডি দেবগৌরাও কলকাতায় সবা করেছেন৷ মোদীও করেছেন৷ কিন্তু এর আগে এক নির্বাচনে ১৭ বার বাংলায় সভা করেছেন কোনও প্রধানমন্ত্রী, তা মনে পরছে না৷ মোদীজি সেরকম করে দেখালেন৷ ’’

প্রধানমন্ত্রী ৩ এপ্রিল জলপাইগুড়ির কাওয়াখালি এসজেডিএ মাঠে জনসভা দিয়ে শুরু হয়েছিল৷ এরপর ব্রিগেড প্যারেড গ্রাউন্ড কলকাতা সভা করেন তিনি৷ ব্রিগেডে হ্যাঙ্গারের নিচে জনসভা করেছিল বিজেপি৷ যা আগে কোনও রাজনৈতিক দল করেনি৷

এরপর, কোচবিহার রাসমেলার মাঠে এপ্রিল ৭ সভা করেন তিনি৷ ২০ এপ্রিল বালুরঘাটের বুনিয়াদপুরে তিনি জনসভা করেন৷ ২৩ এপ্রিল আসানসোলে সভা করেন মোদী৷ ২৪ এপ্রিল ফের বোলপুর এবং রানাঘাটে সভা করেন৷ ২৯ এপ্রিল শ্রীরামপুর এবং জগদ্দলে সভা করেন প্রধানমন্ত্রী৷ পঞ্চমদফা নির্বাচনের আগে ৬ মে তমলুক এবং ঝাড়গ্রামে সভা করবেন মোদী৷ এরপরই ৯ মে সভা করেছেন বাঁকুড়া এবং পুরুলিয়ায়৷ ইতিমধ্যেই নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে যে, ১৫ মে বসিরহাট এবং ডায়মন্ডহারবারে সভা করবেন মোদী৷ ১৬ মে মথুরাপুর এবং দমদমে সভা করবেন মোদী৷ তবে ইতিমধ্যেই রাজ্য বিজেপির তরফ থেকে জানানো হয়ে কলকাতায় নরেন্দ্র মোদীর রোড-শো হবে না৷ সময় দিতে পারবেন না মোদী৷