স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আমেরিকার বাঙালিরা নরেন্দ্র মোদীকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের থেকে বেশি পছন্দ করেন৷ দাবি করেছেন বিজেপির প্রবাসী বন্ধুরা৷ আমেরিকায় বসবাসকারি বাঙালীদের মধ্যে বিজেপির সমর্থকের সংখ্যা নেহাতই কম নয়৷ তাঁদের মধ্যে অনেকেই এমন রয়েছেন যাঁরা সিলিকন ভ্যালিকে প্রতিষ্ঠিত৷ রোনও বড় সংস্থায় কাজ করছেন বা নিজের প্রতিষ্ঠান খুলে জাঁকিয়ে বসেছেন৷ এই রকমই কিছু মানুষ এদিন স্পষ্ট দাবি, আমেরিকায় বাঙালিদের মধ্যে ‘নমো’-এর জনপ্রিয়তা ‘দিদি’র থেকে অনেক বেশি৷ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে জনপ্রিয়তায় পাল্লা দিতে পারেন না৷ বাঙালিদের মধ্যেও নমো নাকি দিদির থেকে অনেক এগিয়ে৷

প্রবাসী বাঙালী বিজেপি সমর্থকদের বক্তব্য, সারা পৃথিবীতেই ভারতীয়-বাঙালী ছড়িয়ে রয়েছেন৷ প্রবাসীরা বিদেশে ভারতের দূত হিসাবে কাজ করে প্রবাসীরা৷ বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তো দূরে থাক দেশের কোনও নেতাই জনপ্রিয়তায় মোদীজির ধারেকাছে আসতে পারে না৷ মোদীর সঙ্গে প্রবাসীদের আত্মীয়তার সম্পর্ক৷ বিজেপি সমর্থকরা বলছেন, ‘‘অনেক প্রবাসীই এখানকার পলিটিকাল সিস্টেমের সঙ্গে যুক্ত৷ ব্যবসা করে এখানেই৷ মোদীর সঙ্গে প্রবাসীদের ‘জয়-বিরু’-র সম্পর্ক, মমতা বিবেচনাতেই নেই, মন্তব্য আমেরিকার বাঙালী বিজেপি সমর্খকদের৷’’

আরও পড়ুন: মোদীর বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর জল্পনা উসকে বিরাট মিছিল প্রিয়াঙ্কার

প্রসঙ্গত, ওভারসিজ ফ্রেন্ডস ওফ বিজেপি নামে একটি সংগঠন সারা পৃথিবীতেই রয়েছে৷ শুক্রবার সারা বিশ্বের নয়টি দেশ থেকে ১৭ ঘন্টা সময়ের অন্তরে বিজেপির প্রবাসী বন্ধুরা ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে কলকাতার বিজেপি দফতরে সাংবাদিক সম্মেলন অংশ নেন৷ সিডনি, সিঙ্গাপুর, হংকং, ইস্তাম্বুল, লন্ডন, নিউইয়র্ক, ওয়েস্ট কোস্ট খেকে প্রবাসী বাঙালীরা কথা বলেন৷ লোকসভা নির্বাচনের পর তারা নরেন্দ্র মোদীকেই আবার প্রধানমন্ত্রী দেখতে চান, তা জানিয়েছেন৷ বিজেপি নেতা শিশির বাজোরিয়া, সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন৷

আরও পড়ুন: মোদীকে ভোট দিতে অস্ট্রেলিয়ার চাকরি ছেড়ে দেশে ফিরেছেন সুধীন্দ্র