নয়াদিল্লি: করোনা সংকটে পূর্ব পরিকল্পনা মতোই দেশের চল্লিশ জন ক্রীড়াবিদদের সঙ্গে টেলি কনফারেন্সে আলোচনা সারলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শনিবার সকাল ১১ টায় নমোর সঙ্গে ভিডিও কলে আলোচনা সারলেন সচিন তেন্ডুলকর, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়, বিরাট কোহলি-সহ ক্রীড়াক্ষেত্রের অন্যান্যরাও। সে তালিকায় ছিলেন দাবায় প্রাক্তন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বিশ্বনাথন আনন্দ, বিশ্বচ্যাম্পিয়ন শাটলার পিভি সিন্ধু, স্প্রিন্টার হিমা দাসরাও।

দেশে করোনার ভয়ানক থাবা প্রাণ কেড়েছে ৫৬ জনের। আক্রান্ত প্রায় ৩০০০। সংখ্যাটা বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে। এমতাবস্থায় করোনা রুখতে পাঁচ দাওয়াই ক্রীড়াবিদদের দিলেন প্রধানমন্ত্রী। সংকল্প, সংযম, সাকারাতমোক্ত, সম্মান এবং সহযোগ- এই পাঁচ মন্ত্রেই করোনাকে ঘায়েল করা যেতে পারে বলে জানালেন নমো। এদিনের আলোচনা পর্বে ছিলেন পিটি ঊষা, পুলেল্লা গোপীচাঁদ, বীরেন্দ্র সেহওয়াগ, বজরং পুনিয়া, গৌতম গম্ভীর, মেরি কম, রোহিত শর্মা, যুবরাজ সিং, চেতেশ্বর পূজারার মতো তারকারাও।

দেশবাসীর মনোবল বাড়ানোর জন্য আপনারা বিশেষ ভূমিকা নিন। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে দেশের নাম উজ্জ্বল করার জন্য ক্রীড়াবিদদের প্রশংসা করে সচিন-সৌরভের কাছে এমনই আর্জি রাখেন প্রধানমন্ত্রী। দেশে ২১ দিনের লকডাউন পিরিয়ডে থাকলেও অনেকেই সরকারি বিধিনিষেধের তোয়াক্কা করছেন না। দেশের তারকা অ্যাথলিটদের কাছে প্রধানমন্ত্রীর আর্জি, তাঁরা যেন দেশবাসীকে এ বিষয়ে অবগত করেন। একইসঙ্গে নমো মনে করিয়ে দেন যে মন্ত্রে দীক্ষিত হয়ে খেলার মাঠে ক্রীড়াবিদরা সাফল্য নিয়ে এসেছেন সেই একই মন্ত্রে যেন দেশবাসী করোনার মোকাবিলা করে।

অর্থাৎ শৃঙ্খলা, সংযম, চ্যালেঞ্জ, আত্মবিশ্বাস এই সকল মন্ত্রে দেশবাসীকে দীক্ষিত করার বার্তা দেশের ক্রীড়াবিদদের প্রদান করেন মোদী। করোনার প্রকোপে স্তব্ধ ময়দান। ঘরোয়া এবং আন্তর্জাতিক ক্রীড়াসূচিতে ব্যাপক রদবদল সময়ের অপেক্ষা। দেশের ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগ আইপিএলের ভবিষ্যৎ বিশ বাঁও জলে।

শুধু দেশের খেলাই নয়। একবছর স্থগিত হয়ে গিয়েছে অলিম্পিক। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর প্রথমবারের জন্য বাতিল ঐতিহ্যের উইম্বলডন। বাতিল ইউরো ২০২০। বিভিন্ন দেশের প্রিমিয়র ডিভিশন ফুটবল লিগ অনিশ্চয়তার কালো মেঘে ঢাকা। এমন সময় করোনা মোকাবিলার জন্য দেশের ক্রীড়াবিদদের সঙ্গে একজোট হয়ে দেশের মানুষের উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন মেনে চলার বার্তা এক অভিনব উদ্যোগ।