ভোপাল: হিন্দি বলয়ে ভোটের হাতিয়ার ‘গরু’৷ রাজনীতির ময়দানে ‘গরু’ তাসেই একে অন্যকে বিঁধছে শাসক, বিরোধী৷ এতদিন গোরক্ষক ইস্যুতে বিরোধীদের নিশানায় থাকতেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ সমালোচনার ঝড় উঠত দেশজুড়ে৷

এবার সুযোগ পেয়েই গো-সংরক্ষণ নিয়ে রাহুলের মন্তব্য তুলে ধরে কংগ্রেসকে কটাক্ষ করতে ছাড়লেন না ‘৫৬ ইঞ্চ কি ছাতি’৷ বললেন, ‘‘মধ্যপ্রদেশে কংগ্রেস গরু সংরক্ষণের কথা বলছে৷ কেরলে বাছুর কেটে খাচ্ছে৷ বলছে এটাই তাদের অধিকার৷ তাহলে কংগ্রসের কোনটা মুখ, আর কোনটা মুখোশ?’’

রবিবার মধ্যপ্রদেশে প্রচারে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী৷ সেখানেই তাঁর অভিযোগ, ‘‘মিথ্যা কথা বলাই কংগ্রেসের ধর্ম৷ নানা সময় বিভিন্ন ধরণের কথা শোনা যায় শতাব্দী প্রাচীন দলের নেতাদের গলায়৷’’ এরপরই উথ্থাপন করেন রাহুলের প্রচারের অংশ বিশেষ৷ প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, ‘‘মধ্যপ্রদেশের ভোটে কংগ্রেস গরু সংরক্ষণ করার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে৷ কিন্তু তার অন্য রূপ কেন?’’ কংগ্রেসের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী ধর্ম নিয়ে রাজনীতির অভিযোগ তোলেন৷

আরও পড়ুন: মেহুল-নীরবদের ঋণের দায় কংগ্রেসের ঘাড়ে চাপালেন মোদী

গরু নিয়ে রাহুলের দলকে বিঁধেই খান্ত হননি প্রধানমন্ত্রী৷ প্রচারে তিনি বলেন, ‘‘মিথ্যা প্রতিশ্রুতি ও চমক, ধমকের রাজনীতি করছে প্রদান বিরোধী দল৷ স্বপ্ন দেখছে ক্ষমতায় আসার৷ কিন্তু মানুষ বোকা নয়৷’’ কংগ্রেস পরিচালনায় পরিবারতন্ত্রের প্রসঙ্গ টেনেও খোঁচা দেন তিনি৷

মধ্যপ্রদেশের প্রচার পর্বে ভাইরাল হয় স্থানীয় কংগ্রেস নেতার বক্তব্য৷ তিনি বলেন, ভোটে জিততে দুষ্কৃতিদের সাহায্য নিতেও পিছপা হবে না দল৷ সেই ভিডিওর প্রসঙ্গ টেনে মোদী বলেন, ‘‘এই তো অবস্থা৷ যেকোন মূল্যে জিততে চায় ওরা৷ মানুষের উপর আস্তা নেই৷’’

আরও পড়ুন: “রামমন্দির না হলে হতে পারে বিদ্রোহ”

২৩০ আসনের মধ্যপ্রদেশে ভোট ২৮শে নভেম্বর৷ তার আগে সরগরম প্রচার ময়দান৷ যে কাঁটায় গেরুয়া শিবিরকে বিঁধেছিল বিরোধীরা, সেই কাঁটাতেই তাদের বধে উদ্যোগী মোদী৷ প্রচারের বাকি পর্বেও এই উত্তাপের অপেক্ষায় আম আদমী৷