স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ভোট মিটতেই তৎপর কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা৷ বিশেষ করে পশ্চিমবঙ্গের চিটফান্ড কেলেঙ্কারি নিয়ে নড়েচড়ে বসেছে সিবিআই ও ইডি৷ সেই গতিকে আরও ত্বরান্বিত করতে রাজ্যে আসলেন অতিরিক্ত সিবিআইয়ের অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর নাগেশ্বর রাও৷

বৃহস্পতিবার সকালে সল্টলেক সিজিও কমপ্লেক্সের সিবিআই দফতরে আসেন সিবিআইয়ের অন্যতম ডিরেক্টর নাগেশ্বর রাও৷ এরপর তিঁনি এখানকার আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন৷ সেখানে হাজির ছিলেন, সিবিআইয়ের জয়েন্ট ডিরেক্টর পঙ্কজ শ্রীবাস্তব,এসপি পদমর্যাদার আধিকারিকরা৷ এছাড়া রাজ্যের একাধিক চিটফান্ড কাণ্ডে যে সব তদন্তকারী অফিসারেরা রয়েছে তারাও এদিন হাজির ছিলেন।

সিবিআই সূত্রে খবর, এদিনের বৈঠকে রাজ্যের একাধিক চিটফান্ড কেলেঙ্কারির তদন্ত এই মূহুর্তে কোন স্তরে রয়েছে তা তিঁনি খতিয়ে দেখেন৷ এমনকি তদন্তের বেশকিছু নথিপত্রও দেখেন সিবিআইয়ের অন্যতম ডিরেক্টর নাগেশ্বর রাও৷ এছাড়া কোন মামলা এখন কী অবস্থায় রয়েছে, সেইসব মামলা নিয়ে আগামীদিনে কোন পথে কিভাবে এগোনো যায় তা নিয়েও আলোচনা করেন৷ বৈঠকে সারদা মামলায় রাজীব কুমারের বিষয়টিও উঠে। সব মিলিয়ে বলা যায় রাজ্যের চিটফান্ড কান্ডে পরবর্তী রণনীতি সাজাচ্ছেন সিবিআইয়ের অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর নাগেশ্বর রাও৷ আগামীকালও তিনি কলকাতায় থাকবেন৷

এক সময় সিবিআইয়ের নাগেশ্বর রাও ও অলোক বর্মার প্রকাশ্য দ্বন্ধে কিছুটা গতি হারিয়েছিল চিটফান্ড তদন্ত৷ সেই সময় শীর্ষ আদালত জানায়,ভারপ্রাপ্ত সিবিআই অধিকর্তা নাগেশ্বর রাও কোনও নীতিগত সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন না৷ পরবর্তী শুনানির আগে পর্যন্ত৷ সেন্ট্রাল ভিজিলেন্স কমিশনের (সিভিসি) রিপোর্ট জমা না-পড়া পর্যন্ত সিবিআই প্রধান অলোক বর্মাও ছিল ছুটিতে৷ এই অবস্থায় সিবিআইয়ের সদর দফতরে কার্যত রাজাহীন সিংহাসন৷ যার ফলে সারদা-নারদা, এয়ারসেল-ম্যাক্সিস, অগাস্টা-ওয়েস্টল্যান্ড ছাড়াও বহু মামলার তদন্তের গতি কমে গিয়েছিল৷

এবার কলকাতায় এসে যেভাবে তিনি সিবিআই অফিসারদের সঙ্গে বৈঠক করছেন, তাতে বলাই যায় আগামীদিনে এই রাজ্যের চিটফান্ড কাণ্ডের তদন্ত আরও গতি পাবে৷