কোহিমা: বড় সিদ্ধান্ত নিল নাগাল্যান্ড সরকার। বাণিজ্যিক আমদানি, বাণিজ্য ও কুকুরের মাংসের বিক্রি নিষিদ্ধ করা হল নাগাল্যান্ডে। শুক্রবার এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

নাগাল্যান্ডের মুখ্য সচিব তেমজেন টয় শুক্রবার টুইটারে জানিয়েছেন, “রাজ্য সরকার বাজারে কুকুর বিক্রি নিষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এবং কুকুরের মাংস বিক্রিতেও নিষেধাজ্ঞা আনা হয়েছে। কাঁচা বা রান্না কোনও মাংসই বিক্রি করা চলবে না।

উল্লেখ্য, নাগাল্যান্ডে ইন্টারনেটে একটি ছবি মারাত্মক ভাবে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে কয়েকটি কুকুরকে মুখ বেঁধে নাগাল্যান্ডের ডিমাপুরের একটি বাজারে ব্যাগে ভরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়ান এনিমাল প্রোটেকশন অর্গানাইজেশনস বৃহস্পতিবার কুকুরের মাংসের ব্যবসা নিষিদ্ধ করার জন্য রাজ্য সরকারকে একটি নতুন আবেদনও জমা দেয়। এর একদিন পরেই এই বিবৃতি জানাল নাগাল্যান্ড সরকার।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া অভিনীত সিনেমা মেরি কমের পরিচালক ওমুং কুমার একটি অনলাইন প্রচারে অংশ নিয়েছিলেন, সেখানে
কুকুরের মাংস নিষিদ্ধ করার দাবিতে ইমেল পাঠাতে বলা হয়। অর্থাৎ সাধারণ মানুষের মধ্যেও কুকুরের মাংস বিক্রি নিয়ে ক্ষোভ ছিলই।

উল্লেখ্য, নাগাল্যান্ডে য়েকটি সম্প্রদায়ের মধ্যে কুকুরের মাংস একটি সুস্বাদু খাবার হিসেবে জনপ্রিয়। ২০১৬ সালেও অ্যানিমাল রাইটস -এর কর্মীরা কুকুরের মাংসের বিষয়ে সরকারকে একটি আইনি নোটিশ পাঠিয়েছিল।

নাগাল্যান্ডে পাইকারি দরে কুকুর বিক্রি করা হলে তার দাম পাওয়া যায় ১০০০ টাকা। নাগাল্যান্ডের রাস্তায় ২০০ টাকা কেজিতে কুকুরের মাংস বিক্রি করা হয়। উল্লেখ্য, শুধু নাগাল্যান্ড না দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের আরও কয়েকটি অঞ্চলে কুকুরের মাংস খাওয়া হয়।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।