মেলবোর্ন: ফেডেরিকো ডেল বোনিসকে হেলায় হারিয়ে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের তৃতীয় রাউন্ডে পৌঁছলেন রাফায়েল নাদাল। তবে ম্যাচ জয়ের পাশাপাশি কোর্টে অন্য একটি ঘটনায় অনুরাগীদের দিল জিতে নিলেন স্প্যানিশ টেনিস মায়েস্ত্রো। প্রমাণ দিলেন কোর্টে বিপক্ষকে মাটি ধরাতে যেমন সিদ্ধহস্ত, ঠিক তেমনই বড় মনের মানুষ তিনি।

ঘটনাটি ঘটে আর্জেন্তিনার প্রতিদ্বন্দ্বীর বিরুদ্ধে বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় রাউন্ডের তৃতীয় সেটে। প্রথম দু’টি সেট জিতে নাদালের ম্যাচে কব্জা করা তখন কেবল সময়ের অপেক্ষা। এমন সময় বিপক্ষের একটি সার্ভিস নাদালের র‍্যাকেটে প্রতিহত হয়ে সজোরে গিয়ে আঘাত করে কোর্টের পাশে দাঁড়িয়ে থাকা এক খুদে বল গার্লের মাথায়। খেলা থামিয়ে স্প্যানিয়ার্ড ছুটে যান শারীরিক অবস্থার খোঁজ নিতে। এরপর খুদে বল গার্লের কাছে গিয়ে তার গালে স্নেহের চুম্বন করেন ১৯টি গ্র্যান্ড স্ল্যামের মালিক।

আরও পড়ুন: বিরাটের সামনে ধোনিকে টপকানোর হাতছানি

নাদালের এই আচরণকে করতালি দিয়ে কুর্নিস জানায় মেলবোর্ন পার্কের গ্যালারি। ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়তেও মুহূর্তে তা ভাইরাল হয়ে যায়। ঘটনার অনতিপরে ম্যাচও পকেটে পুড়ে নিয়ে তৃতীয় রাউন্ড মিশ্চিত করেন রাফা। তৃতীয় রাউন্ডে পৌঁছনোর পথে আর্জেন্তিনার ডেল বোনিসকে এদিন স্ট্রেট সেটে পরাজিত করেন ২০০৯ অস্ট্রেলিয়ান ওপেন জয়ী। নাদালের পক্ষে এদিন ম্যাচের ফল ৬-৩, ৭-৬ (৭-৪), ৬-১। দ্বিতীয় সেটে তুল্যমূল্য লড়াই ছুঁড়ে দিলেও প্রথম ও তৃতীয় সেটে কার্যত অসহায় আত্মসমর্পণ করেন নাদালের আর্জেন্তাইন প্রতিদ্বন্দ্বী।

আরও পড়ুন: অবসর নিয়ে এখনও কিছু ভাবেননি ছেত্রী

ম্যাচের পর খুদে বল গার্লের প্রতি তাঁর আচরণ প্রসঙ্গে স্প্যানিয়ার্ড বলেন, ‘ওর জন্য আমার মনে হয় এটা দারুণ একটা মুহূর্ত। তবে আমি ভীষণই ভয় পেয়ে গিয়েছিলাম। বলের গতি ভীষণ ছিল এবং সজোরে গিয়ে ওর মাথায় লেগেছিল।’ নাদাল আরও বলেন, ‘ও খুব সাহসী মেয়ে। এটা আমার কেরিয়ারের অন্যতম ভয়ের একটা মুহূর্ত ছিল। তবে জেনে ভালো লাগছে যে ও একদম সুস্থ রয়েছে। ওয়েল ডান।’