Rafael Nadal
অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে নাদাল৷

মেলবোর্ন: প্রস্তুতি টুর্নামেন্ট থেকে নাম তুলে নিয়ে পিঠের ব্যথায় কাবু রাফায়েল নাদাল উদ্বেগ বাড়িয়ে দিয়েছিলেন অনুরাগীদের। বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম শুরুর আগে তাঁকে নিয়ে বাড়ছিল শঙ্কা। যদিও প্রথম দু’টি রাউন্ডের ম্যাচ জিততে বিশেষ বেগ পেতে হয়নি তাঁকে। পিঠের ব্যথাকে উপেক্ষা করে মেজাজেই পৌঁছে গিয়েছিলেন তৃতীয় রাউন্ডে। আর শনিবার তৃতীয় রাউন্ডে ফের একবার স্ট্রেট সেটে জয় তুলে নিয়ে নাদাল আশ্বস্ত করলেন তাঁর অনুরাগীদের।

এদিন ব্রিটেনের ক্যামেরন নরিকে হারিয়ে নাদাল জানিয়ে দিলেন পিঠের ব্যথা আর কোনও উদ্বেগ নেই। পিঠের ব্যথা আর বিশেষ ভোগাচ্ছে না তাঁকে।  যদিও ব্রিটেনের প্রতিদ্বন্দ্বীর বিরুদ্ধে এদিন সেরা ছন্দে পাওয়া যায়নি ২১টি মেজরের লক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে অংশ নেওয়া স্প্যানিশ মায়েস্ত্রোকে। তবুও স্ট্রেট সেতেই এদিন জয় ছিনিয়ে নেন ক্লে-কোর্টের অবিসংবাদী নায়ক। রাফার পক্ষে ম্যাচের ফল ৭-৫, ৬-২, ৭-৫। নাদাল এদিন ম্যাচ জয়ের পর স্পষ্ট জানান, ‘আজ মনে হল পিঠের সমস্যাটা অনেকটাই কাটিয়ে উঠতে পেরেছি। আজই প্রথম এতটা উন্নতি মনে হল। ‘

উল্লেখ্য, পিঠের সমস্যার কারণে প্রথম দু’টি রাউন্ডের ম্যাচে সার্ভিসেও বদল আনতে হয়েছিল রাফাকে। কিন্তু পিঠের সমস্যাটা যেহেতু ধীরে ধীরে কাটিয়ে উঠছেন তাই পুরনো সার্ভিসে শীঘ্রই ফেরত যাবেন তিনি। এদিন ম্যাচ জয়ের পর তেমনটাই জানালেন নাদাল। নাদাল এদিন ম্যাচের পর বলেন, ‘আজই প্রথম পিঠের সমস্যা কাটিয়ে উঠে আমি নর্ম্যাল সার্ভিসে ফিরে গেলাম। তবে আজ যা করেছি তার চেয়ে অনেক ভাল আমি করতে পারি। আমার মনে হয় আগামীদিনগুলোতে সার্ভিস আরও ভাল হবে। পিঠের চোট কাটিয়ে সুস্থ হওয়াই আমার সবচেয়ে বড় জয়।

বৃহস্পতিবার তৃতীয় রাউন্ডে ওঠার পথে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মাইকেল মো’র বিরুদ্ধে স্ট্রেট সেটে জয় ছিনিয়ে নিয়েছিলেন স্প্যানিশ কিংবদন্তি। স্প্যানিশ তারকার পক্ষে ওই ম্যাচের ফল ছিল ৬-১, ৬-৪, ৬-২। এর আগে মঙ্গলবার প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে পিঠের চোটকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে স্ট্র্বেট সেটে জয় তুলে নিইয়েছিলে রাফা। সার্বিয়ার প্রতিদ্বন্দ্বী লাসলো জেরেকে নাদাল হারিয়েছিলেন ৬-৩, ৬-৪, ৬-১ ব্যবধানে। ম্যাচ জিতে নাদাল বলেছিলেন, ‘১৫ দিন এখানে খুব কঠোরভাবে কেটেছে। তাই আজকের ম্যাচটা ছিল টিকে থাকার লড়াই। আমি খুশি যে আমি পরের রাউন্ডের যোগ্যতা অর্জন করেছি। আমি আজ ভালই পারফর্ম করেছি।’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.