প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে আরও কড়া বার্তা দিল নবান্ন। বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানাল করোনা রোগী ফেরালেই হাসপাতালের লাইসেন্স বাতিল করা হবে। এক্ষেত্রে সরকারি হাসপাতালগুলোকেও রেয়াত করা হবে না বলে সাফ জানানো হয়েছে।

দু’টি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে নবান্ন। ওই বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, করোনা আবহে কোনও রোগীকে সরকারি কিংবা বেসরকারি হাসপাতাল ফেরাতে পারবে না। রোগীদের ভর্তি নিয়ে তাদের যথাযথ চিকিৎসা করতে হবে। ২০১৭ সালের আইন অনুযায়ী সেই বেসরকারি হাসপাতালের লাইসেন্স বাতিল করে দেওয়া হতে পারে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে ওই বিজ্ঞপ্তিতে।

একই ভাবেসরকারি কোনও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ যদি রোগী ফেরায় তবে সংশ্লিষ্ট বিভাগীয় প্রধান থেকে দায়িত্ব থাকবেন তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থাও নেওয়া হবে। সার্ভিস রুল অনুযায়ী আরও পদক্ষেপও নেওয়া হবে।

এতদিন রাজ্যে কয়েকটি হাসপাতালকে করোনা চিকিৎসার জন্য নির্দিষ্ট ধরা হয়। তবে এই বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট করে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এবার প্রয়োজনে রাজ্যের সমস্ত সরকারি এবং বেসরকারি হাসপাতালে করোনা রোগীর চিকিৎসা হবে।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার নবান্নের সভাঘরে ৩৩টি বেসরকারি হাসপাতালের কর্ণধারদের সঙ্গে বৈঠকেই এব্যাপারে ‘মৌখিক নির্দেশ’ দিয়েছিলেন মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা। তিনি বলেছিলেন, জরুরি বিভাগে আসা অন্য রোগীদের করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট না-আসা পর্যন্ত চিকিৎসা বন্ধ রাখা যাবে না।

সেদিনই মুখ্যসচিব বলেছিলেন, ‘‘২০১৭-য় তৈরি রাজ্যের ক্লিনিক্যাল এস্টাব্লিশমেন্ট আইন অনুযায়ী, সংক্রমণে আক্রান্ত রোগীদের ভর্তি নিতে লাইসেন্সপ্রাপ্ত বেসরকারি হাসপাতালগুলি বাধ্য। সরকার কিছু চাপিয়ে দিতে চায় না। কিন্তু আইনে যে রোগী ফেরানোর অবকাশ নেই তা স্মরণ করানো হয়েছে।’’

কোভিড রোগী ফেরানোর প্রবণতা রুখতে বেসরকারি ও সরকারি হাসপাতালে প্রতি দিন কত শয্যা খালি রয়েছে, স্বাস্থ্য দফতরের ওয়েবসাইটে সেই তথ্য জানিয়ে দেওয়া হবে বলে জানান তিনি। সরকারের তরফে মৌখিক নির্দেশ’র এক সপ্তাহের মধ্যেই এই কড়া বিজ্ঞপ্তি জারি করা হল।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ