পাটনা: মোদী সরকার ও কেন্দ্রের নীতির বিরোধিতায় এক ইঞ্চি জায়গাও ছাড়ছেন না বিরোধীরা। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভাইরাল ভিডিও-তে দেখা যাচ্ছে একজন বাচ্চা ছেলের মুখে শোনা গেল আজাদি স্লোগান। শুধু তাই নয়, মোদী বিরোধী স্লোগানেও মুখরিত হয়েছে মঞ্চ।

সূত্রের খবর, বিহারে কমিউনিস্ট পার্টি অফ ইন্ডিয়ার অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে এই বাচ্চা ছেলেটিকে আজাদি স্লোগান তুলতে দেখা গিয়েছে। সেখানে কানাইয়া কুমার উপস্থিত ছিলেন বলেই জানা গিয়েছে।

৬৮ সেকেন্ডের হাই-ভোলটেজ সেই বক্তব্যে মোদী শাসিত সরকারকে প্রশ্ন করেছেন, “তাজমহল বা রেড ফোর্ট না থাকলে গোটা পৃথিবীকে কী গরু আর গোবর দেখাতেন”।

মোঘলদের তৈরি সৌধ নিয়েও কেন্দ্রীয় সরকারকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি ওই খুদে। ১১ বছরের ওই ছেলেটি ঠিক এই বক্তব্য রাখার পরেই আজাদি স্লোগান তুলতে দেখা গিয়েছে তাঁকে।

পাশাপাশি, ‘নরেন্দ্র মোদী মুর্দাবাদ’ স্লোগানে মুখরিত করেছে অনুষ্ঠানকে এবং কুঁড়িয়ে নিয়েছে সাধারণ মানুষের ভালবাসা। উপস্থিত মানুষ ভুঁয়সী প্রশংসা করেছেন ১১ বছরের ওই ছেলেটির এবং তাঁর অকুতভয় সত্ত্বাকে।

রিপোর্ট বলছে, সিপিআই পরিচালিত ‘সংবিধান বাঁচাও’ সভাটি হয়েছে বিহারের রাজধানী শহর পাটনায়। সভা শেষে উপস্থিত নেতা কানাইয়া কুমার ১১ বছরের ছেলেটির সাহসকে কুর্ণিশ জানিয়েছেন।

নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসির বিরোধিতা করে একের পর এক সভা করছেন সিপিআই নেতা কানাইয়া কুমার। বৃহস্পতিবার বিহারে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সেদিনের মঞ্চে কানাইয়ার পাশে উপস্থিত ছিলেন নর্মদা বাঁচাও আন্দোলনের নেত্রী মেধা পাটেকর, মহাত্মা গান্ধীর নাতি তুষার গান্ধী এবং প্রাক্তন আইএএস অফিসার কান্নান গোপিনাথন যিনি আর্টিকেল ৩৭০ বিলোপে অনেক কম বয়সেই তাঁর পেশা থেকে দূরে সরে গিয়েছেন।

তাঁর বক্তব্যের সময়, উপস্থিত সকলকে নিয়ে জাতীয় সঙ্গীত গেয়েছেন তবে শেষের দিকে কিছু শব্দ উহ্য রেখেছেন। এমন স্লিপ-আপের কারণে সিপিআই নেতা ট্রোলড হয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।