পিয়ংইয়ং: পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষা না করার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্টর যদি উত্তর কোরিয়াকে চাপ দেয়, তবে ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করা হবে৷ বহু প্রতিক্ষিত ট্রাম্প-কিম বৈঠক নিয়ে এমনই হুমকি দিল উত্তর কোরিয়া৷

উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন বলেন, ট্রাম্প প্রশাসন যদি প্রকৃতই পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নতি চায়, তবে সবার আগে খবরদারি বন্ধ করতে হবে৷ কোণঠাসা করার মনোভাব বদলাতে হবে তাদের৷ নয়তো এই বৈঠকে আগ্রহী নয় উত্তর কোরিয়া৷ উল্লেখ্য দক্ষিণ কোরিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে প্রতি বছরই ‘ম্যাক্স থান্ডার’ নামে একটি যৌথ মহড়া চলে৷ এই মহড়ারই বিরোধিতা করে নিজেদের ক্ষোভ প্রকাশ করেছে উত্তর কোরিয়া৷

এমনকি এই মহড়ার প্রতিবাদে দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে আলোচনা থেকেও সরে গেছে কিমের দেশ৷ উত্তর কোরিয়ার সহ বিদেশমন্ত্রী কিম কে গউন জানিয়েছেন পারমাণবিক অস্ত্র প্রত্যাহারের যদি একতরফা হয়, তবে তা মেনে নেবে না তাঁর দেশ৷ এতে যদি বৈঠক বাতিল হয়, তবে তাতেও আপত্তি নেই উত্তর কোরিয়ার৷

তিনি জানান, বিশ্ব জানে উত্তর কোরিয়া, ইরাক বা লিবিয়া নয়। ওই দুই দেশে যে ভাবে নিরস্ত্রীকরণ হয়েছে, এখানে তা সম্ভব নয়। আর আমেরিকা যদি ভাবে, ওদের দেশে ব্যবসা করতে দিলেই আমরা পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ করব, তাহলে সেটা ভুল।
প্রসঙ্গত, এপ্রিলের শেষে দুই কোরিয়ার মধ্যে যে উষ্ণ সম্পর্কের ছবি দেখা গিয়েছিল হঠাৎ করেই মিলিয়ে যেতে শুরু করেছে৷ ট্রাম্প-কিম বৈঠক যদি উত্তর কোরিয়া বাতিল করে দেয়, তার দায় ট্রাম্পকেই নিতে হবে বলে জানিয়েছে পিয়ংইয়ং।