লখনউ: ইস্যু উত্তরপ্রদেশ জুড়ে নিজের মূর্তি স্থাপন৷ সেই ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টে এফিডেভিট দাখিল করলেন বহুজন সমাজ পার্টি সুপ্রিমো মায়াবতী৷ এর আগে, শীর্ষ আদালত জানিয়ে ছিল লখনউ ও নয়ডাতে মায়াবতী দলীয় প্রতীক হাতি ও নিজের যে সব মূর্তি তৈরি করেছেন, সেই টাকা সাধারণ মানুষের৷ অর্থাৎ মানুষের টাকায় নিজের প্রচার সেরেছেন তিনি৷

সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দেয় ওই টাকা ফেরত দিতে হবে সাধারণ মানুষকে৷ আদালতের এই নির্দেশের পরেই নিজের বক্তব্য তুলে ধরেন তিনি৷ বলেন যে সব মূর্তি তিনি গড়েছেন তা সাধারণ মানুষের ইচ্ছাতেই, তাঁদের স্বার্থেই৷ দলিতদের লড়াই ও জীবন সংগ্রামের প্রতীক হিসেবে তিনি এই মূর্তিগুলো তৈরি করেছেন বলে দাবি তাঁর৷

২০০৯ সালে শীর্ষ আদালতে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়৷ যেখানে মায়াবতী সরকারের বিরুদ্ধে জনগণের টাকা নয়ছয়ের অভিযোগ ওঠে৷ প্রায় ২০০০ কোটি টাকা ব্যয় করে নিজের মূর্তি ও বসপার প্রতীক তৈরির অভিযোগ ছিল তাঁর বিরুদ্ধে৷ মামলাকারীর অভিযোগ ছিল রাজ্য বাজেটে এই খাতে অর্থ বরাদ্দ করা হয় এবং এর মাধ্যমে দলের প্রচার করাই ছিল মায়াবতীর লক্ষ্য৷ আর রাজ্য বাজেট ব্যবহার করে কোনওভাবেই রাজনৈতিক প্রচার করা যায় না৷

মাসখানেক এই ইস্যুতে মায়াবতীর কাছ থেকে সাফাই চায় সুপ্রিম কোর্ট৷ সেই সূত্রেই এই এফিডেভিট বলে খবর৷ মায়াবতীর দাবি তাঁর বিরুদ্ধে জনগণের টাকা নয়ছয় করার যে অভিযোগ উঠেছে, তা একেবারেই উদ্দেশ্যপ্রণোদিত৷