কলকাতা: কঠিন পরিস্থিতে ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দিয়ে ইতিহাস রচনা করেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়৷ তৈরি করেছিলেন টিম ইন্ডিয়া৷ এমনই এক পরিস্থিতিতে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের দায়িত্ব হাতে তুলে নিয়ে তেমনই কিছু করতে চান মহারাজ৷ বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের চেয়ার বসে ভারতীয় দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার মতোই মন যা চাইবে, সেটাই করে যাওয়ার চেষ্টা করবেন সৌরভ৷

বোর্ড প্রেসিডেন্ট হয়ে শহরে ফেরার পরই ‘ঘরের ছেলে’ সৌরভকে সংবর্ধনা দিতে শুক্রবার এলাহি আয়োজন করেছিল সিএবি৷ সৌরভের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন ইডেন গার্ডেন্সের দুই ভেরি ভেরি স্পেশাল মহম্মদ আজহারউদ্দিন ও ভিভিএস লক্ষ্ণণ৷ দু’জনেই সৌরভের ভূয়সি প্রশংসা করেন৷ অধিনায়ক হিসেবে সৌরভ ভারতীয় ক্রিকেটকে যেভাবে গৌরবান্বিত করেছে, বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হিসেবেও একইভাবে ভারতীয় ক্রিকেটকে সেই জায়গায় নিয়ে যাবে বলে আশাবাদী দুই হায়দরাবাদি।

তবে কোন ফর্মুলায় ভারতীয় বোর্ড প্রেসিডেন্ট হিসেবে কাজ করবেন এই প্রশ্নের উত্তরে সৌরভ বলেন, ‘যখন খেলতাম, তখন কোনও দিন ভাবিনি সিএবি এবং বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হব৷ তবে আমি কোনও ফর্মুলাতে বিশ্বাস করি না৷ এটা আমার কাছে বিরাট দায়িত্ব৷ যখন টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন হয়েছিলাম, তখন প্রত্যেকে একই কথা জানতে চেয়েছিলেন৷ আজও আমার উত্তর একই৷ আমার ফর্মুলা, মন যা চাইবে, সেটাই করব৷’

জগমোহন ডালমিয়ার মৃত্যুর পর অর্থাৎ ২০১৫-এর নভেম্বর থেকে সিএবি প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব সামলেছিলেন সৌরভ৷ এবার বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের চেয়ারে ৪৬ বছরের এই বঙ্গ সন্তান৷ বুধবার মুম্বইয়ে বোর্ডের বার্ষিক সাধারণ সভায় ৩৯তম বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন সৌরভ৷ এই প্রসঙ্গে প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক বলেন, ‘এই দিনটা আমার কাছে অত্যন্ত স্পেশাল৷ এর জন্য আমার সতীর্থ, ক্যাপ্টেন, কিউরেটর এবং যাদের সঙ্গে ড্রেসিংরুম শেয়ার করেছি তাদের প্রত্যেকে ধন্যবাদ৷ জানাই৷ চেষ্টা করব ভারতীয় ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে যেতে৷’

গত ৬৫ বছর কোনও ক্রিকেটার ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড প্রেসিডেন্টের চেয়ারে বসছেন৷ শেষবার ১৯৫৪ সালে বিজয়নগরের মহারাজার পর সৌরভ বিসিসিআই প্রেসিডেন্টের পদ অলংকৃত করলেন৷ তবে সৌরভের জন্য কাজটা মোটের সহজ নয়৷ কারণ ৩৩ মাস সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত সিওএ দ্বারা চালিত ভারতীয় ক্রিকেটকে নতুন পথের দিশা দেখাতে হবে সৌরভকে৷

সৌরভ বলেন, ‘আমি যখন ক্যাপ্টেন হয়েছিলাম, যখন ভারতীয় ক্রিকেটও কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিল৷ আমি যখন বোর্ডে প্রেসিডেন্ট হলাম, তখনও কঠিন সময়৷ তবে চেষ্টা করব ভারতীয় ক্রিকেটকে ঠিক পথে চালিত করার৷ যখন ছাড়ব, তখন যেন কেউ না-বলতে ক্রিকেটাররা ভালো প্রশাসক হতে পারে না৷’

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।