নয়াদিল্লি: পুরো বিশ্বে মুসলিমরা সবথেকে সুখে আছে ভারতেই। আর হিন্দু সংস্কৃতির জন্যই সেটা সম্ভব হয়েছে। এমনটাই বললেন আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত। আরএসএস ন’দিনের সফরে ওডিশা গিয়েছেন ভাগবত। সেখানে অখিল ভারতীয় কার্যকরী মণ্ডলের সভায় গিয়ে এই মন্তব্য করেছেন তিনি। এই প্রথমবার ওডিশায় আরএসএস তাদের বৈঠকের আয়োজন করেছে।

মোহন ভাগবত শনিবার ওই সভা থেকে বলেন, ‘হিন্দু কোনও ধর্ম নয়, ভাষা নয় কিংবা কোনও দেশের নাম নয়। হিন্দু হল একটা সংস্কৃতি, যাতে ভারতের মানুষ বিশ্বাস করে ও অন্য সব সংস্কৃতিকে গ্রহণ করে। যন কোনও জাতি তাদের সঠিক পথ থেকে সরে যায় তখন তারা আমাদের কাছে আসে সত্যের খোঁজে।’

আরএসএস প্রধানের কথায়, ‘যখন ইহুদিরা ঘুরে বেড়াচ্ছিল, তখন ভারতই একমাত্র দেশ, তাদের শেল্টার দিয়েছিল৷ পারসিরা তাঁদের ধর্মীয় আচার স্বাধীন ভাবে পালন করতে পারেন একমাত্র ভারতেই৷ ভারতের মুসলিমরা পৃথিবীতে সবচেয়ে সুখী৷ আর তার কারণ, আমরা হিন্দু৷ অনেক ভারতীয়, নিজেদের হিন্দু পরিচয় দিতে লজ্জা পান৷ কিছু এমন মানুষ আছেন, যাঁরা গর্বের সঙ্গে নিজেদের হিন্দু বলেন৷ আসলে কিছু মানুষ নিজেদের হিন্দু পরিচয় লুকনোর চেষ্টা করেন, স্বার্থ সিদ্ধির জন্য৷’

সঙ্ঘ প্রধানের দাবি, আরএসএস কাউকে ঘৃণা করে না৷ তাঁর কথায়, ‘যারা ভারতে জন্মগ্রহণ করেছেন, যারা দেশের জন্য কাজ করছেন, হাতে হাত মিলিয়ে শান্তি স্থাপনের চেষ্টা করছেন। সব বৈচিত্রকে সম্মান ও স্বাগত জানান, সেই সব ভারতীয়ই হিন্দু৷’ একই সঙ্গে দেশে গণপিটুনির মতো কোনও ঘটনা কখনও ঘটেনি বলেও দাবি করেন তিনি৷ বলেন, ‘ভারতে এরকম কোনও দিনই হয়নি৷ লিঞ্চিং শব্দটির উত্‍সটা দেখতে হবে৷ অন্য ধর্মে একসময় এই রকম ঘটনা ঘটত৷’