চণ্ডীগড়:  অমরনাথ যাত্রীদের উপর জঙ্গি হামলার প্রতিবাদ চলছিল৷ বিক্ষোভকারীদের দাবি মতো এক সংখ্যালঘু ব্যক্তি ভারত মাতা কী জয় বলতে চাননি৷ এর জেরে তাকে মারধর করা হয়েছে৷ হরিয়ানার হিসার শহরের ঘটনা৷ পরিস্থিতি সামাল দিতে এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী৷

উগ্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠনটির কর্মীরা যেভাবে এক ইমামের উপর চড়াও হয়েছেন তাতে অস্বস্তিতে বিজেপি৷ তারাই হরিয়ানার সরকারে৷ আক্রান্ত ব্যক্তির নাম মহম্মদ ইয়াসিন৷ তিনি একজন ফল বিক্রেতা৷ তিনি হিসারের বাজারে আম বিক্রি করেন৷ বাড়ি উত্তরপ্রদেশের সাহারানপুরে৷

হিসার শহরের লাহোরিয়া চকের কাছে জড় হয়েছিলেন বজরং দল কর্মীরা৷ চলছিল অমরনাথ যাত্রীদের উপর জঙ্গি হামলার প্রতিবাদ৷ বিক্ষোভকারীরা ইয়াসিনকে ধরেন৷ অভিযোগ, বজরং কর্মীদের দাবি মতো ‘বন্দেমাতরম’ ও ‘ভারত মাতা কী জয়’ ধ্বনি দিতে রাজি হয়নি ইয়াসিন৷ এরপরই তার মুখে চড় মারতে শুরু করেন কয়েকজন৷ ঘটনার ভিডিও রেকর্ড সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই বিতর্ক দানা বেধেছে৷

 

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.