কলকাতা ও শিলচর: বঙ্গে জট অসমে কোলাকুলির পালা- দুই রাজ্যে বিজেপি বিরোধী মহাজোটের দুই চিত্র। গঙ্গা থেকে বরাক উপত্যকার সংখ্যালঘু ভোট ব্যাংক ধরে রাখতে বারবার বার্তা আসছে খোদ ম্যাডামের তরফে।

বিধানসভা নির্বাচনের মুখে তীব্র জোট জটের ফাঁক খুঁজতে মরিয়া পশ্চিমবঙ্গের সংযুক্ত মোর্চা। তবে বামফ্রন্টের সঙ্গে আসন ভাগাভাগিতে তুষ্ট আব্বাস সিদ্দিকী। বলেছেন রক্ত ঝরিয়ে বাম প্রার্থীদের সঙ্গে থাকবেন। কিন্তু ব্রিগেড মিটিং থেকে আসন ভাগিদারি নিয়ে ইন্ডিজ সেক্যুলার ফ্রন্ট প্রধান সরাসরি কংগ্রেস কে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

পশ্চিমবঙ্গ প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি তথা বহরমপুরের সাংসদ অধীর চৌধুরী দুই সংখ্যালঘু অধ্যুষিত জেলা মালদহ ও মুর্শিদাবাদের কোনও আসন আব্বাস সিদ্দিকীর দলের জন্য ছাড়বেন না জানানোয় জোটের ফাটল বাড়ছে। অধীরবাবুর দাবি,দুই জেলায় কংগ্রেসের শক্তি বরাবরই বেশি। এখানে আসন ভাগিদারি হবে না।

জট কাটাতে বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু ও সিপিআইএম শীর্ষ নেতা মহম্মদ সেলিম আসরে নেমেছেন। তবে সংযুক্ত মহামোর্চার প্রার্থী ঘোষণা হয়নি।

বরাক তীরে অসমের সংখ্যালঘু বাঙালি এলাকায় জট কেটে ভোট প্রচারে গতি এনেছে কংগ্রেস ও এআইইফডিএফ। অসম প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি রিপুন বরা, বরাক উপত্যকার নেত্রী সুস্মিতা দেবের সঙ্গে আলোচনায় বরফ গলেছে। সংখ্যালঘু নেতা বদরুদ্দিন আজমলের দল এআইইউডিএফ ও কংগ্রেসের মধ্যে আসন রফা চূড়ান্ত।

বরাক উপত্যকার তিনটি জেলা হাইলাকান্দি, করিমগঞ্জ ও কাছাড়ে ১৫টি আসনের মধ্যে ১০টি কংগ্রেস ও ৫টি এআইইউডিএফ লড়াই করবে। রাজ্যের অন্যত্র একই সূত্র মেনেই আসন সমঝোতা হবে।

কাছাড়ের সদর শিলচরে কংগ্রেস নেত্রী সুস্মিতা দেব জানান, বিজেপি বিরোধী ভোটব্যাংক একত্রিত করেই লড়াই হবে। জোটের বাম শরিকদের সঙ্গেও আলোচনা চলছে।

প্রতিবেশি দুই রাজ্যের সংখ্যালঘু ভোট নিয়েই সমীকরণ তীব্র। অসম ও পশ্চিমবঙ্গের ভোটে বিজেপির অন্যতম রাজনৈতিক ইস্যু এনআরসি ও সিএএ। অসমে লক্ষ লক্ষ মানুষের নাগরিকত্ব তালিকায় নাম বাতিল বিধানসভা ভোটে প্রবল বিতর্ক। এর জেরে বরাক উপত্যকায় সংখ্যালঘুদের মধ্যে অসন্তোষ তীব্র। পশ্চিমবঙ্গে ক্ষমতায় থাকা তৃণমূল কংগ্রেসেরও অভিযোগ, বিজেপি বিভাজনের নামে নাগরিকত্ব সংশোধন করতে মরিয়া।

যদিও বাংলায় কংগ্রেস ও বামফ্রন্টের দাবি, তৃণমূল কংগ্রেসের আমলেই রাজ্যে বিজেপির বৃদ্ধি। জোটের তরফে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলকে বিজেপির বি-টিম বলে কটাক্ষ করা হচ্ছে। তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বিজেপি শিবিরে যোগদানের হিড়িক আরও বাড়বে বলেই জোট নেতৃত্বের অনুমান।

বাংলায় কি মহাজোটের ফাটল থাকবেই? তবে অসমে কংগ্রেস ও সংখ্যালঘু নেতা বদরুদ্দিন আজমলের কোলাকুলির খবরে উচ্ছসিত গঙ্গাপারের জোট নেতারা। আব্বাস সিদ্দিকী ও অধীর চৌধুরীর মধ্যে দ্বন্দ্বের অবসান হবে বলেই বার্তা আসছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।