প্রার্থী-পরিচয়

লোকসভা কেন্দ্র: মুর্শিদাবাদ

বদরুদ্দোজা খান

রাজনৈতিক দল: বামফ্রন্ট

বয়স: ৬৫ বছর

লেখাপড়া: কলকাতা ইউনিভার্সিটি থেকে বিএসই, বি এড

পেশা: প্রাক্তন স্কুল শিক্ষক

রাজনৈতিক কেরিয়ার: ২০০৭ থেকে ১২ সাল পর্জন্ত শিক্ষক সংগঠন এবিটিএর রাজ্য সভাপতি ছিল। এরপর বিদায়ী সাংসদ।

শখ: বই পড়া

পরিবারের সদস্য: স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে

ভোটারদের কাছে গিয়ে বলছেন: বিজেপি ও তৃণমূলকে সমর্থন নয়। দুর্নীতি, স্বজনপোষণ ও ধর্মীয় হানাহানি বিরুদ্ধে রুখে দাড়াতে বামফ্রন্ট প্রার্থীকে ভোট দিন

জিতলে প্রথম কাজ: বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান

আবু তাহের খান

রাজনৈতিক দল: তৃণমূল কংগ্রেস

বয়স: ৫৪ বছর

লেখাপড়া: উচ্চ মাধ্যমিক

পেশা: রাজনীতি

রাজনৈতিক কেরিয়ার: কলেজে পড়ার সময় থেকে ছাত্র পরিষদের সদস্য৷ পরবর্তীকালে কংগ্রেসের টিকিটে তিনবারের বিধায়ক ৷মুর্শিদাবাদে কংগ্রেসের জেলাসভাপতি ছিলেন৷২০১৮ সালে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দেন৷

শখ: জনসংযোগ

পরিবারের সদস্য: স্ত্রী, এক ছেলে

ভোটারদের কাছে গিয়ে বলছেন: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নমূলক কাজ দেখে আমাকে ভোট দিনজিতলে প্রথম কাজ: প্রথম কাজ হবে রাজ্য সরকারের উন্নয়নকে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া।

আবু হেনা

রাজনৈতিক দল: কংগ্রেস

বয়স: ৬৯ বছর

লেখাপড়া: স্নাতক, এলএলবি

পেশা: আইনজীবী

রাজনৈতিক কেরিয়ার: লালগোলার টানা পাঁচবারের বিধায়ক

শখ: বই পড়া

পরিবারের সদস্য: স্ত্রী ও এক ছেলে

ভোটারদের কাছে গিয়ে বলছেন: মুর্শিদাবাদ বরাবরই কংগ্রেসের গড় ৷আপনারা এই গড়কে রক্ষা করুন৷ আমি জিতলে বাবার(প্রয়াত আব্দুস সাত্তার, প্রাক্তন কৃষিমন্ত্রী) পথ ধরে কৃষির উন্নতি করব৷

জিতলে প্রথম কাজ: কৃষিতে সবুজ বিপ্লব আনা ও এলাকার সার্বিক উন্নয়ন৷

হুমায়ন কবীর

রাজনৈতিক দল: বিজেপি

বয়স: ৫০ বছর

লেখাপড়া: মাধ্যমিক

পেশা: ব্যবসা ও রাজনীতি

রাজনৈতিক কেরিয়ার: একবারের প্রাক্তন বিধায়ক, রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী

শখ: জনসংযোগ

পরিবারের সদস্য: স্ত্রী ও মেয়ে রয়েছে

ভোটারদের কাছে গিয়ে বলছেন: বিজেপি সাম্প্রদায়িক দল নয়৷ দেশের বিরোধীরা মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছে৷ এবারও আপনারা নরেন্দ্র মোদীর হাত শক্ত করুন৷

জিতলে প্রথম কাজ: কেন্দ্রীয় সরকারের উন্নয়নমূলক কাজ সকলের কাছে পৌঁছে দেওয়া৷