মায়ের সম্মান বাঁচাতে গিয়ে দুষ্কৃতীদের মারে জখম ছেলে

তমলুক: মাকে কটূক্তির প্রতিবাদ করে দুষ্কৃতীদের হাতে বেদম মার খেল এক কিশোর। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুর থানার বনমালীপুর গ্রামে। এই ঘটনায় ভগবানপুর থানায় লিখিত অভিযোগ জানানো হলেও এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি বলে পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে।
স্থানীয় সূত্রে খবর, ভগবানপুরের ভীমেশ্বরী বাজারের কাছে স্থানীয় একদল যুবক প্রায়ই পথ চলতি মহিলাদের কটূক্তি করে বলে অভিযোগ। দিন কয়েক আগে বনমালীপুর গ্রামের বাসিন্দা একাদশী কর্মকারের স্ত্রীকেও এই যুবকরা রাতের অন্ধকারে রাস্তায় একা পেয়ে কটূক্তি করে। এরপরে বাধ্য হয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যে নাগাদ একাদশী-বাবুর স্ত্রী তাঁর ছেলে বিমলের সাইকেলে চেপে বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিল। সেই সময় স্থানীয় তিন যুবক ওই মহিলার উদ্দেশ্যে কুরুচিকর মন্তব্য করতে থাকে। বিষয়টি সহ্য করতে না পেরে বিমল সাইকেল থেকে নেমে গিয়ে এই ঘটনার প্রতিবাদ জানায়। তখনই ওই দুর্বৃত্তরা ক্ষিপ্ত হয়ে বিমলকে রাস্তায় ফেলে বেধড়ক মারধর করতে থাকে।
ছেলেকে বাঁচাতে গেলে তাঁর মায়ের ওপরেও হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। এই সময় মহিলার শ্লীলতাহানি করা হয় বলেও অভিযোগ। এরপর মহিলার চিৎকারে স্থানীয় পথচলতি মানুষরা এগিয়ে এলে দুষ্কৃতীরা পালিয়ে যায়। আহত অবস্থায় বিমলকে ভগবানপুর ব্লক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসার পর বিমলকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এই ঘটনায় পীড়িত ওই মহিলা ভগবানপুর থানায় স্থানীয় যুবক সোমনাথ কর্মকার, গৌতম কর্মকার এবং দোলন কর্মকারের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে। যদিও ভগবানপুর থানার পুলিশ জানিয়েছেন, শনিবার তমলুক লোকসভার উপ নির্বাচনের কাজ সামলাতে থানার অধিকাংশ পুলিশ আধিকারিক ও কর্মী চলে গিয়েছেন। ফলে অভিযোগ জমা হলেও এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি বলে পুলিশ জানিয়েছে।