স্টাফ রিপোর্টার, বালুরঘাট: অবৈধ সম্পর্কের জেরে খুনের ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হল গোটা এলাকায়। দক্ষিণ দিনাজপুরের তপন থানা এলাকার ঘটনা। সোমবার সকালে এলাকায় মানুষ ওসমান মন্ডল নামের বছর পঞ্চান্নর এক ব্যক্তির মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন। খবর পেয়ে তপন থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, তপন থানার অন্তর্গত জগদীশবাটি এলাকা থেকে উদ্ধার মৃত ওসমান মন্ডলের বাড়ি স্থানীয় হোসেনপুর গ্রামে। প্রাথমিক তদন্তে উঠে এসেছে জগদীশবাটি এলাকার বাসিন্দা নাজিমুদ্দিন সরকারের স্ত্রী বুলবুলি সরকারের সঙ্গে তাঁর অবৈধ সম্পর্ক ছিল। এই ব্যাপারে রবিবার রাতে তাঁদের দু’জনকে হাতেনাতে ধরেও ফেলেন নাজিমুদ্দিন। ঘটনায় বাড়ির পাশেই ফাঁকা জায়গায় নাজিমুদ্দিন ও ওসমানের মধ্যে বচসা হয় বলে স্থানীয়রা পুলিশকে জানিয়েছেন।

অভিযোগ, সেই সময়ই ওসমানের গলা টিপে ধরেন নাজিমুদ্দিন সরকার। মুখ দিয়ে রক্ত বেরিয়ে এলে ফেলে রেখে পালিয়ে যায় অভিযুক্ত। ঘটনাটি টের পেতেই এলাকার কয়েকজন ছুটে আসেন৷ তাঁরা এসে রক্তাক্ত অবস্থায় ওসমান মন্ডলকে উদ্ধার করে গঙ্গারামপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায়৷ কিন্তু হাসপাতালে যাওয়ার পথেই মৃত্যু হয় তাঁর। এর পরে তাঁকে আর হাসপাতালে না নিয়ে গিয়ে ফের পূর্বের অবস্থানে ফেলে দিয়ে যাওয়া হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে প্রাথমিক তদন্তে জানতে পেরেছে, স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের জেরেই ওসমান মন্ডলের গলা টিপে ধরেছিলেন নাজিমুদ্দিন সরকার। যদিও ঘটনার পর থেকেই পলাতক তিনি। পাশাপাশি অভিযুক্ত নাজিমুদ্দিনের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করা হয়েছে৷ তাঁর খোঁজে তল্লাশি জারি রয়েছে বলেও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানিয়েছেন।