স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : ছেলের হাতে খুন হলেন বাবা। বাগুইআটির অশ্বিনীনগরের ঘটনা। মৃত শ্যামল চট্টোপাধ্যায় বায়ুসেনার অবসরপ্রাপ্ত কর্মী ছিলেন। দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ছেলে চন্দু চট্টোপাধ্যায় (৫৭)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, রবিবার গভীর রাতে খবর পেয়ে বাগুইআটির অশ্বিনীনগরের একটি আবাসনের যায় পুলিশ। তখন তারা দেখতে পান ঘরের সোফায় পড়ে রয়েছে বায়ুসেনার অবসরপ্রাপ্ত কর্মী শ্যামল চট্টোপাধ্যায়। বয়স ৮৩ বছর।

শ্যামল চট্টোপাধ্যায়কে ঘর থেকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে পাঠানো হয়।সেখানে চিকিৎসকেরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এর পর ময়নাতদন্তের জন্য আর জি কর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

মৃতের গলায় আঘাতে চিহ্ন রয়েছে। ঘর থেকে উদ্ধার হয়েছে রক্ত মাখা একটি দড়ি। ঘটনাস্থলে আসে ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা। ঘর থেকে তারা কিছু নমুনা সংগ্রহ করেন।

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, গলায় নাইলনের দড়ি পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করা হয়েছে।এবং এই কান্ড ছেলে চন্দু চট্টোপাধ্যায়ের, এমনটাই মনে করছে পুলিশ। আটক করা হয় ছেলেকে। ধৃত চন্দু পেশায় আইটি কর্মী ছিল। কিছু দিন আগে সে কর্মহীন হয়ে পড়ে। কর্মসূত্রে কিছু দিন আমেরিকায়ও ছিল। কী কারণে বাবাকে এভাবে খুন করল ছেলে, তার তদন্ত শুরু করেছে বাগুইআটি থানার পুলিশ।