ফাইল ছবি

জয়পুর: হায়দরাবাদ ধর্ষণকাণ্ডে অভিযুক্তদের চরম শাস্তির দাবিতে গর্জে উঠেছে আসমুদ্রহিমাচল। ধর্ষণের মত ঘৃণ্য অপরাধের ক্ষেত্রে নতুন আইন রূপায়নের ভাবনা চিন্তাও শুরু করেছে কেন্দ্র। শহরের নিরাপত্তা বাড়াতে আঁটসাঁট নজরদারি এবং সুরক্ষার আশ্বাস দিয়েছে পুলিশও। কিন্তু, ভারতের শহরে মেয়েরা আদৌ সুরক্ষিত কি না তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে বারবার। এরমধ্যেই আরও একটি ধর্ষণের ঘটনা সামনে এসেছে।

রাজস্থানের জয়পুরে এক উনিশ বছরের তরুণীকে হোটেলেরই এক কর্মীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে।
নির্যাতিতা হোটেল ম্যানেজমেন্টের ট্রেনিংয়ের জন্য রাজস্থানের একটি হোটেলে যান। সেখানেই হোটেলের এক কর্মী তাঁকে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

মুম্বইয়ের বাসিন্দা ওই নির্যাতিতা কিছুদিনের জন্য জয়পুরের ওই হোটেলে ট্রেনিংয়ের জন্য গিয়েছিলেন। কিন্তু, তাঁর ওই কর্মস্থলেই যে এমন বিপদ লুকিয়ে রয়েছে তাঁর আঁচ পাননি ওই তরুণী। হোটেলে ট্রেনিংয়ের মাঝেই ধর্ষণের শিকার হন তিনি। পুলিশের কাছে তরুণী জানিয়েছেন, গত সপ্তাহে ওই হোটেলের কাছে ধর্ষণ করা হয় বলে অভিযোগ। এই বিষয়ে জয়পুরের খো নাগোরিয়ান পুলিশ স্টেশনে অভিযোগও দায়ের করেছেন তিনি।

পিটিআই সূত্রে খবর, গত সপ্তাহে একটা পার্টির আয়োজন করা হয়েছিল। সেই পার্টিতে ওই তরুণী ছাড়াও উপস্থিত ছিল ওই অভিযুক্তও। পার্টি শেষে ওই তরুণীকে হোটেলের কাছেই নিজের কর্মস্থলে নিয়ে যায় অভিযুক্ত। অভিযোগ, এরপরেই ওই তরুণীকে ধর্ষণ করা হয়।

তরুণীর কাছ থেকে এই বিষয়ে অভিযোগ পাওয়ার পরেই ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। তবে, এখনও পর্যন্ত কাউকেই গ্রেফতার করা হয়নি। এই প্রসঙ্গে এক পুলিশ আধিকারিক বলেন, ‘তদন্ত চলছে আমরা শীঘ্রই অপরাধীকে গ্রেফতার করব।’

পপ্রশ্ন অনেক: নবম পর্ব

Tree-bute: আমফানের তাণ্ডবের পর কলকাতা শহরে শতাধিক গাছ বাঁচাল যারা